বৃহস্পতিবার   ১২ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৮ ১৪২৬   ১৪ রবিউস সানি ১৪৪১

পিরোজপুর সংবাদ
ব্রেকিং:
ঘুষ-দুর্নীতির বিরুদ্ধে সজাগ থাকার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর ভান্ডারিয়ায় ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস উপলক্ষে র‌্যালী অনুষ্ঠিত মঠবাড়িয়ায় ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস উপলক্ষ্যে র‌্যালী ও আলোচনা সভা ভারতের উদ্যোক্তাদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্বান তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারে দায়িত্বশীল হতে হবে: স্পিকার তৃতীয় টার্মিনাল নির্মাণ হলে সেবা পাবে আরও ১২ মিলিয়ন যাত্রী মালিকের গাফিলতিতে কেরানীগঞ্জে অগ্নিকাণ্ড: স্বাস্থ্যমন্ত্রী শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানালেন ট্রাইব্যুনাল রূপপুর বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে দেশ নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ পাবে ৬০ বছর বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন: ড. কামাল-রীভা গাঙ্গুলির বৈঠক
৩৫

আইনজীবীগণ হচ্ছেন সোশ্যাল ইঞ্জিনিয়ার : প্রধান বিচারপতি

প্রকাশিত: ২ ডিসেম্বর ২০১৯  


প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেছেন, আইনজীবীগণ বিচার ব্যবস্থার একটি অন্যতম অনুষঙ্গ। আইনজীবীগণ হচ্ছেন সোশ্যাল ইঞ্জিনিয়ার, আর বিচারকরা হচ্ছেন বিচারের মূর্ত প্রতীক। আইনের শাসন ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে বিচারক ও আইনজীবীদের সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। আইনজীবীগণ বিচার ব্যবস্থার একটি অপরিহার্য অঙ্গ। আইনজীবীদের সহায়তা ছাড়া বিচার ব্যবস্থা কিছুতেই অগ্রসর হতে পারে না। 
 রবিবার বিকেলে প্রধান বিচারপতি ২০০৫ সালে গাজীপুর আইনজীবী সমিতির কক্ষে জেএমবির আত্মঘাতী বোমা হামলার ১৪ বছর উপলক্ষে গাজীপুর জেলা আইনজীবী সমিতি কার্যালয় চত্বরে শোকসভা ও দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওইসব কথা বলেন। 
গাজীপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি মো. খালেদ হোসেনের সভাপতিত্বে ও সাধরণ সম্পাদক মো. মনজুর মোর্শেদ প্রিন্সের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী এডভোকেট আ ক ম মোজাম্মেল হক, গাজীপুরের জেলা ও দায়রা জজ এ কে এম আবুল কাশেম, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ এম আমিন উদ্দিন খান, গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলাম, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট আজমত উল্লাহ খান, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী এস এম শফিকুল ইসলাম বাবুল, এডভোকেট মো. ওয়াজ উদ্দিন মিয়া, গাজীপুরের জিপি মো. আমজাদ হোসেন বাবুল, গাজীপুরের পিপি মো. হারিছ উদ্দিন আহমদ, এডভোকেট মো. সুলতান উদ্দিন, এডভোকেট মো. নুরুল আমিন, দেওয়ান আবুল কাশেম, জেবুন্নেছা মিনা প্রমুখ।
প্রধান বিচারপতি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর রাজনৈতিক অপশক্তির প্রভাবে দেশে ধর্মান্ধ ও প্রতিক্রিয়াশীল বিভিন্ন চক্রের উদ্ভব ঘটেছে। এরপর নানা পৃষ্ঠপোষকতায় স্বাধীনতা বিরোধী ও জঙ্গিবাদে বিশ্বাসী এই চক্র দেশে বিস্তৃতি লাভ করতে থাকে। এই চক্রের মূল টার্গেট হল বিচারাঙ্গন। দেশের বিচারাঙ্গনের বিচারক ও আইনজীবীগণ এই বর্বর চক্রের নির্মম ও মর্মান্তিক হামলার শিকার হয়েছে। মূলত যারা বাংলাদেশের অস্তিত্বে বিশ্বাস করে না। সেই বিপথগামী গোষ্ঠী বারবার বিচার ব্যবস্থার উপর আঘাত করেছে। তারা বিচারক হত্যা করে, আইনজীবী হত্যা করে। তারা জানে না ব্যক্তিকে হত্যা করা যায়, আদর্শকে হত্যা করা যায় না। বাংলাদেশের শান্তি-শৃঙ্খলা বিঘ্নিত করতে এবং দেশকে অস্থিতিশীল করে নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য তাদের এই অপপ্রয়াস। তাদের এ অপপ্রয়াসকে রুখে দাঁড়াতে হবে। 

গাজীপুরের জেলা জজের বিচারক সংকটের বিষয়ে প্রধান বিচারপতি বলেন, গাজীপুর আদালতে এজলাসের সংকট না থাকলে এখানে আরও বিচারক প্রেরণ করা হবে, যাতে এখানে বিচার কাজ ত্বরান্বিত হয়। 

এর আগে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিবৃন্দ বারের নিহত আইনজীবীদের স্মরণে বার প্রাঙ্গণে নির্মিত শহীদ বেদীতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। 

এই বিভাগের আরো খবর