• বুধবার   ২৭ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১২ ১৪২৭

  • || ০৪ শাওয়াল ১৪৪১

পিরোজপুর সংবাদ
৩৪

আম্ফান মোকাবেলায় সব শিক্ষক-কর্মকর্তাকে সহযোগিতা করতে হবে

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ২০ মে ২০২০  


 
উপকূলীয় এলাকায় ঘূর্ণিঝড় আম্ফান মোকাবেলায় সব সরকারি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সহযোগিতা করতে হবে। 

ঘূর্ণিঝড়ের আগে ও পরে স্থানীয় জেলা ও উপজেলা প্রশাসন এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটিকে সহযোগিতা করতে সব সরকারি বেসরকারি শিক্ষকদের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর।

বুধবার (২০ মে) অধিদপ্তর থেকে এ নির্দেশনা সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও মাঠ পর্যায়ের জেলা-উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের পাঠানো হয়েছে।

মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক স্বাক্ষরিত নির্দেশনায় বলা হয়, আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস অনুযায়ী পশ্চিমমধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় আম্ফান ২০ মে বিকাল বা সন্ধ্যার মধ্যে বাংলাদেশের উপকূল অতিক্রম করবে। ঘূর্ণিঝড় ‘আম্ফান' মোকাবেলায় ঘূর্ণিঝড়ের সম্ভাব্য আঘাত পূর্ববর্তী এবং আঘাত পরবর্তী সময়ে এসব এলাকায় অবস্থিত মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের সব পর্যায়ের দপ্তর ও সরকারি-বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদেরকে স্থানীয় জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের বা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সাথে সম্পৃক্ত থেকে প্রয়োজনীয় সহঘোগিতা করার জন্য বলা হলো।

নির্দেশনায় আরও বলা হয়, সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের ধানরা বিষয়টি নিশ্চিত করবেন। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা স্থানীয় প্রশাসনের সাথে বিষয়টি সমন্বয় করবেন। আর আঞ্চলিক পরিচালক উপ-পরিচালক এবং জেলা শিক্ষা কর্মকর্তারা স্থানীয় প্রশাসনকে সহযোগিতা করার বিষয়টি সার্বক্ষণিক মনিটরিং করবেন।
উপকূলীয় এলাকায় ঘূর্ণিঝড় আম্পান মোকাবেলায় ইতোমধ্যে স্কুল-কলেজ-মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জনসাধারণের আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে খুলে দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর তালিকা জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে পাঠাতে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আর ঘূর্ণিঝড়ে কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ক্ষতিগ্রস্ত হলে সে তথ্য ২৪ ঘণ্টার মধ্যে মাধ্যমিক উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর পাঠাতে বলা হয়েছে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের।

শিক্ষা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর