মঙ্গলবার   ৩১ মার্চ ২০২০   চৈত্র ১৭ ১৪২৬   ০৬ শা'বান ১৪৪১

পিরোজপুর সংবাদ
২৮৬

উদ্বোধনের অপেক্ষায় তালতলা সেতু

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯  

পিরোজপুরের নাজিরপুর-বৈঠাকাটা সড়কের পাঁচ হাজার মিটার চেইনেজে তালতলা নদীর ওপর দীর্ঘ সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। এখন শুধু অপেক্ষা কবে খুলবে সেতুটি। সেতুটি দিয়ে নাজিরপুরের দেউলবাড়ী, কলারদোয়ানিয়া ও মালিখালী ইউপির লোকজন সরাসরি নাজিরপুর সদরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করতে পারবে। এছাড়া এ এলাকার সবজি চাষিরা সহজে তাদের ভাসমান পদ্ধতিতে চাষ করা সবজি দেশের বিভিন্ন এলাকায় পাঠাতে পারবেন।  ২০১২ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি নাজিরপুর-বৈঠাকাটা সড়কের তালতলা নদীর ওপর সেতু (পিসি গার্ডার ব্রিজ) নির্মাণের কাজ শুরু হয়। সেতুটির পশ্চিম পাশে নাজিরপুরের শাখারীকাঠী ইউপি এবং পূর্ব পাশে একই উপজেলার দীর্ঘা ইউপি অবস্থিত।

উপজেলার বৈঠাকাটা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি গফুর মিয়া বলেন, বৈঠাকাটা ভাসমান সবজির হাট অনেকের কাছে পরিচিত। দেশ-বিদেশের অনেকেই এখানে আসেন ভাসমান হাট দেখতে। যোগাযোগ ব্যবস্থার বেহাল দশার কারণে এ এলাকার কৃষকরা বাধ্য হয়ে তাদের উৎপাদিত সবজি এ পাইকারি হাটে বিক্রি করে ন্যায্যমূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। সেতুটি চালু হলে তারা সড়ক পথে পণ্য পরিবহন করে বিভিন্ন বাজারে নিয়ে বিক্রি করে ন্যায্যমূল্য পাবে। নাজিরপুরের দেউলবাড়ী এলাকার বাসিন্দা এসএম মুন্না বলেন, সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ায় আনন্দিত। দীর্ঘদিন ধরে খেয়ায় পারাপার করছি। ঝড়-বৃষ্টির দিনে ভয়ে ভয়ে খেয়া পার হতাম। খেয়া ডুবির ঘটনাও ঘটেছে কয়েকবার। 

উপজেলার শ্রীরামকাঠী বন্দর এলাকার বাসিন্দা দীর্ঘা ইউপির একাডেমির সহকারী শিক্ষক সনজীব কুমার রায় বলেন, শাখারী কাঠী প্রান্ত থেকে প্রায় ৫০ জন শিক্ষার্থী দীর্ঘা ইউপি একাডেমিতে পড়াশোনা করে। ঝড়-বৃষ্টির দিনে দুর্ভোগের মধ্যে তাদের খেয়ায় পার হতে হয়। ৭ থেকে ৮ বছর আগে খেয়া পার হবার সময় একটি কার্গোর ধাক্কায় খেয়াটি নদীতে ডুবে যায়। কিন্তু কোনো প্রাণহানির ঘটনা ঘটেনি।  

নাজিরপুরের দেমাদীক নগর উপজেলা বাস্তবায়ন পরিষদের আহবায়ক ঢাকা জেলা জজ আদালতের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আল আমিন রিজভী বলেন, সেতুটি চালু হলে তালতলা নদীর পূর্বপাড়ের দীর্ঘা, মালিখালী, কলার দোয়ানিয়া ও দেউলবাড়ী ইউপির লোকজনসহ স্বরূপকাঠীর বলদিয়া ও বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার  মলুহার, ইলুহার, বিশারকান্দি ইউপির কৃষিজীবীরা সবচেয়ে বেশি উপকৃত হবে।

দেউলবাড়ী ইউপির প্যানেল চেয়ারম্যান মো. ইব্রাহিম গাজী বলেন, বছর দুয়েক আগে তিনি মোটরসাইকেল নিয়ে তালতলা নদী খেয়ায় পার হবার সময় তাদের বহনকারী ট্রলারটি নদীতে ডুবে যায়। এ সময় তারা ট্রলারে থাকা লোকজন সাঁতরে তীরে উঠেন। পরে ডুবুরির সাহায্যে মোটরসাইকেলটি পানির নিচ থেকে উপরে তোলা হয়।

নাজিরপুর উপজেলা প্রকৌশলী মো. জাকির হোসেন মিয়া বলেন, সেতুটির মূল অবকাঠামোর শতভাগ কাজ এরই মধ্যে শেষ হয়েছে। এখন জনগণের চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করা যেতে পারে।

পিরোজপুর এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী সুশান্ত রঞ্জন রায় বলেন, ৩৬০ মিটার দৈর্ঘ্য এবং ৮ দশমিক ৪ মিটার প্রস্থের এ সেতুটির নির্মাণে ব্যায় হয় ৩৯ কোটি টাকা। সেতুটির নির্মাণ কাজ পায় মেসার্স মাহফুজ খান নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। কিছুদিন আগে এ সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হয়। এলজিইডির নিজস্ব অর্থায়নে সেতুটি নির্মাণ করা হয়।

এই বিভাগের আরো খবর