• সোমবার   ১৯ এপ্রিল ২০২১ ||

  • বৈশাখ ৬ ১৪২৮

  • || ০৬ রমজান ১৪৪২

পিরোজপুর সংবাদ

উড়ন্ত সূচনার পরেই বিপর্যয়ে বাংলাদেশ

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

ঢাকা টেস্টে গুরুত্বপূর্ণ চতুর্থদিন প্রথম সেশনেই ওয়েস্ট ইন্ডিজকে অলআউট করে দিয়েছে বাংলাদেশ। জয়ের জন্য পেয়েছে ২৩১ রানের লক্ষ্য। জবাবে ওপেনিং জুটিতে ৫৯ রান যোগ করে বাংলাদেশ। এরপরই শুরু হয় যাওয়া আসার মিছিল। এরই মধ্যে ১৫৭ রানে ৭ উইকেট হারিয়েছে স্বাগতিকরা। জয়ের জন্য এখনও দরকার ৭৪ রান।

ক্রিজে আছেন মেহেদি মিরাজ ও তাইজুল ইসলাম। এর আগে তামিম ইকবাল ৪৬ বলে টি-২০ গতিতে ৫০ রান করে ফিরেছেন। তার আগে ওপেনার সৌম্য সরকার ১৩ রান করে সাজঘরে ফেরেন। নাজমুল শান্ত করেন ১৩ রান। মুশফিকের ব্যাট থেকে ১৪ ও মোহাম্মদ মিঠুনের ব্যাট থেকে আসে ১০ রান। অধিনায়ক মুমিনুল হক করেছেন ২৬ রান। শেষ বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান হিসেবে নামা লিটন দাস ২২ রান করে ফিরেছেন।  

এর আগে দ্বিতীয় ইনিংসে ১১৭ রানে অলআউট হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৮ রান করে এনক্রুমাহ বোনার আউট হয়েছেন। জসুয়া ডি সিলভা ফেরেন ২০ রান করে। এছাড়া চতুর্থদিন শুরুতে জোমেল ওয়ারিকান ২ রানে ও কাইল মায়ার্স ৬ রান করে আউট হন। জার্মেইন ব্লাকউড ফিরেছেন ৯ রান করে।

তৃতীয়দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে ৩ উইকেট হারিয়ে ৪১ রান তুলেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। প্রথম ইনিংসে তারা পায় ১১৩ রানের লিড।

এর আগে প্রথম ইনিংসে ৪০৯ রান তোলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জবাবে ২৯৬ রানে প্রথম ইনিংস থামে বাংলাদেশের। দলের হয়ে লিটন দাস ৭১ রানের ইনিংস খেলেন। তার সঙ্গে থাকা মেহেদি মিরাজ ৫৭ রান করে আউট হন। তাদের জুটি থেকে আসে ১২৬ রান।

এর আগে দ্বিতীয়দিন স্বাগতিক ওপেনার তামিম ইকবাল ৪৪ রান করেন। মুমিনুলের ব্যাট থেকে আসে ২১ রান।  তৃতীয়দিন সকালে মোহাম্মদ মিঠুন ১৫ এবং মুশফিকুর রহিম ৫৪ রান করে ফেরেন।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে প্রথম ইনিংসে সর্বোচ্চ ৯২ রান করেন জসুয়া ডি সিলভা। পেসার আলজারি জোসেপ ৮২ রানের দারুণ ইনিংস খেলেন।  তার আগে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ৯০ রান আসে এনক্রুমাহ বোনারের ব্যাট থেকে। এছাড়া দুই ওপেনার ক্রেগ ব্রাথওয়েট ও জোহান ক্যাম্পবেল যথাক্রমে ৪৭ ও ৩৬ রান করেন।

বাংলাদেশের হয়ে প্রথম ইনিংসে চারটি করে উইকেট নেন আবু জায়েদ ও তাইজুল ইসলাম। ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে পাঁচ উইকেট নিয়েছেন কর্নওয়াল। তিনটি উইকেট দখল করেছেন পেসার শ্যানন গ্যাব্রিয়েল। বাংলাদেশের হয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে চারটি উইকেট নিয়েছেন তাইজুল ইসলাম। নাঈম হাসান নিয়েছেন তিন উইকেট।