বুধবার   ১৩ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ২৮ ১৪২৬   ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

পিরোজপুর সংবাদ
২০

কাতালোনিয়ায় বিক্ষোভ : মিছিল, অবরোধে অচল বার্সেলোনা

প্রকাশিত: ১৯ অক্টোবর ২০১৯  

বিচ্ছিন্নতাবাদী কয়েকজন কাতালান নেতার কারাদণ্ডাদেশের ঘটনায় কয়েকদিন ধরেই বিক্ষোভ করছেন স্পেনের স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল কাতালোনিয়ার স্বাধীনতাকামী জনগণ।পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষেও জড়িয়ে পড়ছেন বিক্ষোভকারীরা।

স্থানীয় সময় গতকাল শুক্রবার কাতালোনিয়ার বার্সেলোনা শহরে সাধারণ ধর্মঘটের ডাক দেন আন্দোলনকারীরা। পাঁচটি বিশাল মিছিল শহরের কেন্দ্রে এসে মিলিত হলে রাস্তাঘাট বন্ধ হয়ে যায়। এতে এলাকাটি কার্যত অচল হয়ে পড়ে। 

পুলিশ জানিয়েছে, শুক্রবারের মিছিলগুলোতে পাঁচ লাখের বেশি মানুষ অংশ নিয়েছেন।

এ ছাড়া বিক্ষোভকারীরা স্পেন-ফ্রান্স সীমান্তবর্তী একটি সড়ক অবরোধ করে দিলে দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়।

গত সোমবার (১৪ অক্টোবর) কাতালোনিয়ার স্বাধীনতার দাবিতে ‘অবৈধ’ গণভোট আয়োজনের ঘটনায় ‘রাষ্ট্রদ্রোহের’ অভিযোগে ৯ নেতাকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেন স্পেনের সর্বোচ্চ আদালত। এ রায়ের বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ শুরু করেছেন কাতালোনিয়ার জনগণ।

স্প্যানিশ সংবাদপত্র এল পাইস জানিয়েছে, শুক্রবার কাতালোনিয়ার বিভিন্ন এলাকা থেকে ১৭ জনকে আটক করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এ ছাড়া আহত হয়েছেন ৬২ জন যাঁদের মধ্যে ৪১ জন বার্সেলোনার বাসিন্দা।

এদিকে শুক্রবার যাঁরা শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ করেছেন তাঁদের ধন্যবাদ জানিয়ে দাঙ্গাকারিদের সমালোচনা করেছেন কাতালান নেতা কুইন তোরা।

পাশাপাশি তিনি জানান, বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতাদের সাজা দিয়ে কাতালোনিয়ার স্বাধীনতার জন্য সংগ্রাম ঠেকানো যাবে না।

ভোটের মাধ্যমে স্বাধীনতা বিষয়টি নিশ্চিত করার দিকে ইঙ্গিত করে কুইন তোরা বলেন, ‘আমরা আবারও নিজের প্রত্যয় দিয়ে ব্যালট বাক্সে ফিরে আসব।’

এদিকে বিক্ষোভকারীদের আইনের আওতায় আনার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বর্তমানে ব্রাসেলসে অবস্থানরত স্পেনের ভারপ্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজ।  

তিনি বলেন, ‘কয়েকদিন ধরে কাতালোনিয়ার বিভিন্ন শহরে যে ভয়াবহ সংঘাত আমরা দেখছি, এর সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের অবশ্যই শাস্তির আওতায় আনা হবে।’

স্পেনের ভারপ্রাপ্ত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ফারনান্দো গ্রান্দে-মারলাসকা জানিয়েছেন, গত পাঁচদিনে প্রায় ১৩০ জন বিক্ষোভকারীকে আটক করা হয়েছে। আটক দাঙ্গাকারিদের ছয় বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড ভোগ করতে হতে পারে বলে জানান ফারনান্দো।

সর্বশেষ কী ঘটেছে?

গতকাল শুক্রবার গভীর রাতে বার্সেলোনায় জাতীয় পুলিশ সদর দপ্তরের কাছে পুলিশের সঙ্গে মুখোশধারী বিক্ষোভকারীদের দাঙ্গা বাধে। এ সময় বিক্ষোবকারীরা পুলিশের ওপর পাথর ও ক্যান নিক্ষেপ করে। এ ছাড়াও আস্তাকুঁড় থেকে আবর্জনা এনে রাস্তায় ফেলে রাখেন তারা। পুলিশ বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে কাঁদানে গ্যাস, রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে এবং তাদের ছত্রভঙ্গ করতে জলকামান ব্যবহার করে।

এদিকে বার্সেলোনার আরো উত্তরে প্রায় ২০০ বিক্ষোভকারী রাস্তা দখল করলে কাতালান পুলিশ ফরাসী সীমান্তের লা জোনকেরার মোটরওয়েটি বন্ধ করে দেয়। বিক্ষোভকারীরা ওই অঞ্চলের অন্তত ২০টি বড় রাস্তা অবরোধ করে রেখেছে।

এদিকে ২৬ অক্টোবর হতে যাওয়া বার্সেলোনা বনাম রিয়াল মাদ্রিদের ম্যাচটি পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। বার্সেলোনার মাঠে হতে যাওয়া সবচেয়ে হাই ভোল্টেজ ম্যাচ ছিল সেটি। কিন্তু দেশটিতে চলমান অস্থিরতায় শেষ পর্যন্ত ম্যাচটি পিছিয়ে দেওয়া হয়।

এই বিভাগের আরো খবর