রোববার   ১৭ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২ ১৪২৬   ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

পিরোজপুর সংবাদ
৬৫

ঘূর্ণিঝড়ের আগে সংরক্ষণে রাখবেন যেসব খাবার

প্রকাশিত: ৯ নভেম্বর ২০১৯  

বাংলাদেশের দিকে ধেয়ে আসছে অতিপ্রবল মাত্রার ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’। ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী সময়ে বিভিন্নরকম সংকট দেখা দেয়। খাদ্য সংকট তার মধ্যে অন্যতম। তবে ঘূর্ণিঝড়ের পূর্বাভাস পাওয়ার পর বেশকিছু শুকনো খাবার ও বিশুদ্ধ পানি সংরক্ষণ করে রাখতে পারলে এই সংকট কাটানো সম্ভব।

এবার জেনে নিন ঘূর্ণিঝড়ের আগেই সংরক্ষণে রাখবেন যেসব খাবার-

বিশুদ্ধ পানি

শুকনো খাবারের পাশাপাশি বিশুদ্ধ পানি সংরক্ষণও জরুরি। কারণ ঘূর্ণিঝরের পড়ে বিশুদ্ধ পানির সংকট দেখা দিতে পারে।

চিড়া

চিড়া বেশ সহজলভ্য এবং এটি দীর্ঘ সময় পেট ভরিয়ে রাখতে সক্ষম। তাই ঘূর্ণিঝড়ের আগে শুকনো খাবার হিসেবে চিড়া সংরক্ষণ করুন।

মুড়ি

শুকনো খাবারের মধ্যে মুড়ি সহজলভ্য তাই এটি সহজেই সংগ্রহ ও সংরক্ষণ করতে পারবেন। তাই ঘূর্ণিঝড়ের পূর্বাভাস পেলে পর্যাপ্ত পরিমাণ মুড়ি সংরক্ষণ করুন।

খই

মুড়ি-চিড়ার পাশাপাশি সংরক্ষণ করতে পারেন খই। একটি বাষ্পরুদ্ধ জারে বা মুখ আটকানো পলিথিনে খই সংরক্ষণ করুন।

বিস্কুট

বিভিন্নরকম বিস্কুট সংরক্ষণ করতে পারেন। তবে বিস্কটু কেনার আগে দেখে নিন তার মেয়াদ আছে কি না এবং মানসম্মত কি না। নয়তো মানহীন বা মেয়াদোত্তীর্ণ বিস্কুট খেলে পেটে সমস্যা দেখা দিতে পারে।

খেজুর

শুকনো ফলের মধ্যে খেজুর সংরক্ষণ করতে পারেন। এটি সহজে নষ্ট হবে না এবং আপনাকে দ্রুত শক্তি দেবে।

বাদাম

আরেকটি শুকনো ফল বাদাম রাখতে পারেন। যেসব বাদাম সহজলভ্য সেগুলোই সংরক্ষণ করুন। বিপদে কাজে লাগবে।

গুড়

শুধু মুড়ি বা চিড়া খেতে ভালো নাও লাগতে পারে। তাই সংরক্ষণ করতে পারেন গুড়। গুড়ের শরবত খেলেও তৃষ্ণা মেটানোর পাশাপাশি সতেজ থাকা যাবে। গুড়ের পাশাপাশি চিনিও রাখতে পারেন।