• শনিবার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২১ ১৪২৭

  • || ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২

পিরোজপুর সংবাদ

জাতির পিতার নামে আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রবর্তনের সিদ্ধান্ত

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ২৫ অক্টোবর ২০২০  

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রবর্তন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। রবিবার (২৫ অক্টোবর) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। জাতির পিতার নামে আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রবর্তন সম্পর্কিত কমিটির সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এই পুরস্কার প্রবর্তন করা হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে সরকার ২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে ২০২১ সালের ২৬ মার্চ পর্যন্ত মুজিববর্ষ ঘোষণা করেছে। চলমান বৈশ্বিক কোভিড-১৯ মহামারির কারণে প্রতিটি মন্ত্রণালয় ও বিভাগ স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের গৃহীত কর্মপরিকল্পনা অনুযায়ী বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন করছে। এ উপলক্ষে গৃহীত বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে জাতির পিতার নামে আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রবর্তন একটি উল্লেখযোগ্য কর্মসূচি।

গত বছর ২০ মার্চ প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় কমিটি এবং জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির যৌথ সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভার সিদ্ধান্ত এবং প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী জাতির পিতার নামে আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রবর্তনের জন্য এ সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রস্তাব পর্যালোচনা করে সুপারিশ প্রদানের লক্ষ্যে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পিকারকে আহ্বায়ক করে ১৬ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়। যা ইতোমধ্যে গেজেট আকারে প্রকাশিত হয়েছে।

ওই কমিটির প্রথম ভার্চ্যুয়াল সভা কমিটির আহ্বায়ক ও স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে গত ২২ অক্টোবর বিকালে অনুষ্ঠিত হয়। ভার্চ্যুয়াল সভায় কমিটির সদস্য সাবেক মন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, সাবেক মন্ত্রী আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, আইমন্ত্রী আনিসুল হক, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গহর রিজভী, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি শেখ ফজলে শামস পরশ এবং মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক ট্রাস্ট্রি মফিদুল হক মতামত প্রদান করেন।

সভায় জাতির পিতার নামে আন্তর্জাতিক পুরস্কারের নামকরণ, নির্বাচন প্রক্রিয়া, ক্ষেত্র সংখ্যা, ও মূল্যায়ন নির্ধারণসহ বিভিন্ন বিষয়ে গুরুত্বপুর্ণ আলোচনা ও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।