• বৃহস্পতিবার   ০৩ ডিসেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৮ ১৪২৭

  • || ১৭ রবিউস সানি ১৪৪২

পিরোজপুর সংবাদ
ব্রেকিং:
পার্বত্য শান্তিচুক্তি বিশ্বে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে: রাষ্ট্রপতি সরকার পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সর্বত্র শান্তি বজায় রাখতে বদ্ধপরিকর ব্যান্ডউইথ কিনবে সৌদি-ভারত-নেপাল-ভুটান, প্রধানমন্ত্রীর উচ্ছ্বাস মহান বিজয়ের মাস শুরু এইডস রোগ নির্মূল করার জন্য সরকার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ: প্রধানমন্ত্রী সারাদেশে রেল যোগাযোগ গড়ে তোলা হবে: প্রধানমন্ত্রী ঢাকা থেকে পায়রাবন্দর পর্যন্ত রেললাইন নিয়ে যাব: প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু রেল সেতুর নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে বিতর্কের পিছনে ভিন্ন উদ্দেশ্য আছে- কাদের সৌদি সহায়তায় আটটি ‘আইকনিক মসজিদ’ নির্মাণ হবে : প্রধানমন্ত্রী

ট্রাম্পের বাধায় আরো মৃত্যু দেখবে যুক্তরাষ্ট্র, সতর্কতা বাইডেনের

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ১৭ নভেম্বর ২০২০  

ডোনাল্ড ট্রাম্প এখনই কার্যকরী সিদ্ধান্ত না নিলে ২০ জানুয়ারির আগে যুক্তরাষ্ট্র আরও অনেক মৃত্যু দেখবে বলে আশঙ্কার কথা জানিয়েছেন নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। তিনি আহ্বান জানান, নতুন সরকারের কাছে প্রশাসনের তথ্য ও কর্মপরিকল্পনা বুঝিয়ে দেওয়ার। করোনা মহামারি জয় করে অর্থনৈতিক উন্নয়নই ডেমোক্র্যাট দলের প্রধান লক্ষ্য বলে মন্তব্য করেছেন ভাইস প্রেসিডেন্ট কামালা হ্যারিস। এদিকে এবার নির্বাচন প্রক্রিয়াই একপেশে ছিল বলে অভিযোগ করেছেন রিপাবলিকান ট্রাম্প।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ক্ষমতা হস্তান্তরে অনীহা। তাই বলে বসে থাকতে পারেন না সদ্য নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। সহযোগী কামালা হ্যারিসকে নিয়ে কর্মপরিকল্পনা ঠিক করতে ব্যস্ত তিনি। এরই অংশ হিসেবে সোমবার ডেলওয়ারের উইলমিংটনে সাংবাদিকদের সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ আলোচনা করেন এই ডেমোক্র্যাট নেতা। কথা বলেন নানামাত্রিক ইস্যুতে। সতর্ক করেন, ট্রাম্প প্রশাসন এখনই করোনা মোকাবিলায় সমন্বয় না করলে মার্কিন নাগরিকদের আরও চড়া মূল্য দিতে হবে।

যুক্তরাষ্ট্রকে পাশকাটিয়ে চীনের নেতৃত্বে এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের দেশগুলো স্বাক্ষর করেছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় বাণিজ্য চুক্তি। আসিয়ানের সদস্য ১০ দেশের পাশাপাশি এ চুক্তিতে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড। এতে যোগ না দেয়া নিয়ে প্রশ্ন করলে, বাইডেন তা এড়িয়ে যান। তিনি বলেন, ট্রাম্প প্রশাসন এ বিষয়ে ভালো বলতে পারবে। তবে তিনি জানান, ২০ জানুয়ারির পর আনুষ্ঠানিকভাবে হোয়াইট হাউসে গেলে বিনিয়োগ বাড়িয়ে অর্থনীতি চাঙা করতে কাজ করবেন তিনি।

ভাইস প্রেসিডেন্ট ইলেক্ট কামালা হ্যারিসও অর্থনীতিকে শক্তিশালী করার বিষয়ে মত দেন।

আয়োজনে বাইডেন শান্তিপূর্ণ ক্ষমতা হস্তান্তরের আহ্বান জানান। সাবেক শীর্ষ জাতীয় নিরাপত্তা কর্মকর্তারাও মনে করেন, ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রক্রিয়া শুরু করা দরকার। ট্রাম্প প্রশাসনের যে সহযোগিতা পাওয়া যাচ্ছে না, এটি ঠিক নয় বলেও মন্তব্য অনেক মার্কিন কর্মকর্তার।

এদিকে ১৩ নভেম্বরের নির্বাচন মার্কিন নাগরিকদের বিভক্ত করে দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। তিনি বলেন, দুই প্রার্থীই সাত কোটির বেশি ভোট পেয়েছেন, যা স্পষ্ট বিভাজন। তবে তিনি আশা প্রকাশ করেন, জো বাইডেনের নেতৃত্বে যুক্তরাষ্ট্র আগের চেয়ে অনেক ভালো করবে। বাইডেন-কামালা তৈরি করবে নতুন একটি ধারা।

কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্প তার অভিযোগের ধারা থেকে বের হতে পারছেন না। পেনসিলভেনিয়ায় ভোট গণনার সময় রিপাবলিকান পোলিং এজেন্ট ও পর্যবেক্ষকদের ঢুকতে দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেন তিনি। এ অবস্থায় বিপাকে থাকা ট্রাম্প প্রশাসনের মুখে কিছুটা হলেও হাসি ফোটাতে মরিয়া পররাষ্ট্র দফতর। এ দফতরের মন্ত্রী মাইক পম্পেও ফ্রান্স সফর করছেন। এরপর তুরস্ক, জর্জিয়া, ইসরায়েল, সংযুক্ত আরব আমিরাত, কাতার ও সৌদি আরব সফর করবেন। আলোচনা হবে নির্বাচন ইস্যুতে।

এরই মধ্যে জানা গেছে, চলতি সপ্তাহে আফগানিস্তান ও ইরাক থেকে আরও মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করতে পারে ট্রাম্প প্রশাসন।