শনিবার   ২৪ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ৮ ১৪২৬   ২২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

পিরোজপুর সংবাদ

ঢাকায় কোকোর স্ত্রী শর্মীলা: পদ হারানোর আতঙ্কে কেন্দ্রীয় বিএনপি

প্রকাশিত: ১০ আগস্ট ২০১৯  

সম্প্রতি দেশে এসেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মীলা রহমান সিথি। তার দেশে আসাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উদ্দীপনা কাজ করছে বিএনপির অঙ্গসংগঠন ছাত্রদলের মধ্যে। অপরদিকে শর্মীলার দেশে ফিরে আসায় মানসিক অস্বস্তিতে পড়েছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা।

এর কারণও পরিস্কার। গত রোজার ঈদের আগে ছাত্রদলে কেন্দ্রীয় কমিটির পদ পাওয়াকে কেন্দ্র করে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অবরোধ ঘোষণা করে ছাত্রদল। তাদের দাবি ছিল ছাত্রদলের পদ দেওয়ার ক্ষেত্রে বয়সের সীমারেখা যাতে না রাখা হয়। আর এতে করেই বাঁধে গণ্ডগোল। গণ্ডগোলকে কেন্দ্র করে কাকরাইলের নাইটেঙ্গেল মোড়ে ছাত্রদলের মিছিলে ফাটানো হয় ককটেল বোমা। এদিকে তাদের আন্দোলনের অংশ হিসেবে পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় অফিস অবরুদ্ধ করে ছাত্রদলের নেতারা। এতে করে অফিসের ভেতরে আটকা পড়ে থাকে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে দীর্ঘ এক বছর যাবৎ পল্টনে বিএনপির অফিসে একা দিন-যাপন করে যাচ্ছেন তিনি। আচমকা তাকে আটকে রাখার কারণে বেশ কিছু সময়ের পর তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে বিএনপি নেতাদের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নেয় ছাত্রদল। 

আন্দোলনের সাময়িক সমাধান মিললেও পুরোপুরি সমাধান হয়নি। আর এই আন্দোলনের সমস্যা সমাধান করতেই তিনি দেশে এসেছেন বলে নিশ্চিত করেছে বিএনপির উচ্চপদস্থ একাধিক নেতা। এতে করে ছাত্রদলের মধ্যে উদ্দীপনা কাজ করলেও ভীতি কাজ করছে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে। সাম্প্রতিককালে বেশ কয়েকটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে  বিএনপি ও ছাত্রদলের মধ্যে বিরোধ কাজ করছে। আর শেষ আন্দোলনের আগুনে ঘি ঢেলে আগুনের মাত্রা বাড়িয়ে দিতে এসেছেন শর্মীলা। বিএনপির নেতাদের অভিযোগ করে জানিয়েছেন, ছাত্রদলের আত্মসম্মানবোধ উঠে গেছে। তারা এখন বয়সের কথা চিন্তা না করে নিজেদের ইচ্ছেমতো পদে অধিষ্ঠ হতে চায়। তারা এখন আমাদের সিদ্ধান্তকেও মানতে চায় না।

এদিকে ছাত্রদলের একাধিক সিনিয়র নেতা জানিয়েছেন, দলের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা আমাদের সাথে বেঈমানি করলেও আপা আমাদের সাথে করবেন না। বিএনপি আমাদের ভালো চায় না। আমরা সরকারবিরোধী কোনো আন্দোলন করতে পারিনি একমাত্র বিএনপি নেতাদের রঙ্গ-তামাশার জন্য। এখন থেকে আমরা আপার নির্দেশেই কাজ করতে চাই।

তবে বিএনপির একাধিক সূত্র অন্য একটি বিষয় নিশ্চিত করে বলেছে, খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমানের স্ত্রী জোবায়েদা রহমানের সঙ্গে কোকোর স্ত্রী শর্মীলা রহমানের বিরোধ দীর্ঘ দিনের। খালেদার পর বিএনপির হাল কে ধরবে সে নামের ক্ষেত্রে বিভিন্ন সময়ে জোবায়েদা আবার কোনো সময়ে শর্মীলার নাম শোনা যায়। কিন্তু এবার ছাত্রদলের ইস্যুকে কেন্দ্র করে রাজনীতির মাঠে নামতে যাচ্ছেন শর্মীলা। এই ব্যাপারটিও অনেকের কাছে নিশ্চিত। দুর্নীতির মামলায় তারেক রহমান বেশ কয়েকবছর যাবৎ বিদেশে পলায়নরত অবস্থায় আছে। এই কারণে দেশে ফিরতে পারছে না তার স্ত্রী জোবায়েদা রহমান। অপরদিকে তারেকের ছোট ভাই কোকো ২০১৫ সালে স্ট্রোক করে মারা যাওয়ায় বিদেশে সন্তানদের নিয়ে একা জীবন যাপন করছেন শর্মীলা। একসময় তারেকের স্ত্রী হওয়ার সুবাদে জোবায়েদার জনপ্রিয়তা তুঙ্গে থাকলেও তারেকের বিভিন্ন দুর্নীতির কারণে তার জনপ্রিয়তা বেশ হ্রাস পায়। অপরদিকে কোকোর বিরুদ্ধে বিভিন্ন মামলা থাকলেও তিনি মারা যাওয়ায় তিনি দুনিয়া থেকে মুক্তি পান। পক্ষান্তরে ধীরে ধীরে জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে শর্মীলা রহমানের। এখন তিনিই দলের হাল ধরতে পারেন বলে জানিয়েছেন ছাত্রদল ও বিএনপির একাধিক নেতা।

এই বিভাগের আরো খবর