• মঙ্গলবার   ০৭ এপ্রিল ২০২০ ||

  • চৈত্র ২৩ ১৪২৬

  • || ১৩ শা'বান ১৪৪১

পিরোজপুর সংবাদ
ব্রেকিং:
দীর্ঘদিন জেলখাটা আসামিদের মুক্তির নীতিমালা করার নির্দেশ প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়ন হলে অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াবে: অর্থমন্ত্রী করোনা: ৭৩ হাজার কোটি টাকার আর্থিক সহায়তা প্যাকেজ ঘোষণা বেসরকারি হাসপাতাল চিকিৎসা না দিলেই ব্যবস্থা: স্বাস্থ্যমন্ত্রী প্রতি উপজেলা থেকে নমুনা সংগ্রহ করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর আজ থেকে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে সেনাবাহিনী মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে সমালোচনা করছে বিএনপি : কাদের দেশে আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত ২৬ জন সুস্থ : স্বাস্থ্যমন্ত্রী সেনাবাহিনী কতদিন মাঠে থাকবে সরকার বিবেচনা করবে: সেনাপ্রধান শেষ হলো পদ্মাসেতুর সবক’টি পিলার বসানোর কাজ
৩২

দেশের প্রথম বিজনেস ইনকিউবেটর নির্মাণকাজের উদ্বোধন আজ

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ৮ ডিসেম্বর ২০১৯  

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)-এ দেশের প্রথম আইটি বিজনেস ইনকিউবেটরের নির্মাণকাজ রোববার (৮ ডিসেম্বর) উদ্বোধন করা হবে। এটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘শেখ কামাল আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর।’

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক সকাল সাড়ে ১১টায় আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর নির্মাণকাজের উদ্বোধন করবেন। এ সময় বাংলাদেশ রেলপথ সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও চট্টগ্রাম-৬ আসনের সংসদ সদস্য এ বি এম ফজলে করিম চৌধুরী, চুয়েটের ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম উপস্থিত থাকবেন।

ইনকিউবেটর নির্মাণকাজের উদ্বোধনের পর বেলা সাড়ে ১২টায় চুয়েটে রোবোটিকস ল্যাব এবং মোবাইল গেমস অ্যান্ড ডেভলপমেন্ট সেন্টারের উদ্বোধন করবেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী। এরপর দুপুর পৌনে ১টায় চুয়েট কাউন্সিল কক্ষে আইসিটি বিভাগের আইডিয়া প্রকল্প ‘সোশ্যাল মিডিয়া প্যারেড’ অনুষ্ঠানের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন তিনি।

উল্লেখ্য, তথ্যপ্রযুক্তি খাতে উদ্যোক্তা সৃষ্টি, ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে সক্ষমতা বৃদ্ধি এবং বিলিয়ন ডলার বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের লক্ষ্যে শেখ কামাল আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর স্থাপন করা হচ্ছে। চুয়েট ক্যাম্পাসে ৫ একর জমির ওপর ১০ তলা ভবনট নির্মাণ ও আনুষঙ্গিক ব্যয় ধরা হয়েছে ১০০ কোটি টাকা। ২০২০ সালের জুলাইয়ে এর নির্মাণকাজ শেষ হবে।

চুয়েটে নির্মাণাধীন আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর প্রজেক্ট তরুণ প্রযুক্তিবিদদের জন্য অপার সম্ভাবনার দ্বার খুলে দেবে বলে আশা করা হচ্ছে। যেখানে যে কেউ সৃজনশীল আইডিয়া নিয়ে আসতে পারবেন। সেটিকে একটি প্রোডাক্টিভ পণ্য হিসেবে তৈরি করে বাজারজাত করার দায়িত্ব নেবেন ইনকিউবেটর সংশ্লিষ্টরা।

শিক্ষা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর