• মঙ্গলবার   ১১ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৬ ১৪২৭

  • || ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

পিরোজপুর সংবাদ
১৩১

পদ্মার বুকে পাল তোলা নৌকায় আওয়ামী লীগের সম্মেলন!

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ৭ ডিসেম্বর ২০১৯  

 


পদ্মার বুকে পাল তোলা নৌকার আদলে সম্মেলন মঞ্চ। ঠিক এভাবেই আওয়ামী লীগের ২১ তম জাতীয় সম্মেলন মঞ্চের নকশা করা হয়েছে। মঞ্চ ও সাজসজ্জা উপ-কমিটি সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

আগামী ২০ ও ২১ ডিসেম্বর সেই মঞ্চ থেকেই আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এ সম্মেলন উদ্বোধন করে নতুন কমিটি ঘোষণা করবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।

জানা গেছে, মূল মঞ্চটি হবে ১০২ ফুট দীর্ঘ, ৪০ ফুট প্রশস্ত। আর সামনের দিকে থাকবে পদ্মার বুকে ৪০টি পিলারের ওপর দাঁড়িয়ে আছে পদ্মাসেতু- এই দৃশ্য । পদ্মাসেতুর সামনের বিশাল জলরাশিতে ঘুরে বেড়াচ্ছে ছোট ছোট নৌকা। একপাশে চরে জেগে আছে কাশবন। এমনই একটি আবহের মধ্যে দাঁড়িয়ে আছে বিশালাকার এক পাল তোলা নৌকা। তাতে আবার জাতীয় স্মৃতিসৌধের প্রতিকৃতি আছে। এর পেছনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গবন্ধু কন্যা আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ছবি থাকবে।

এমন দৃশ্যকে কল্পনা মনে হলেও তাকে বাস্তবে রূপ দিতেই শতাধিক শিল্পী ও কলাকুশলী এখন নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে।

মঞ্চ ও সাজসজ্জা উপকমিটি সূত্রে জানা গেছে, দলের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন আয়োজনের মঞ্চ নিয়ে বিশেষ পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে আরো আগে থেকেই। আশপাশের এলাকাসহ মূল মঞ্চটি এমনভাবে স্থাপন করা হবে, যেন পদ্মা নদীর বুকে ভেসে বেড়াচ্ছে একটি বিশাল নৌকা! সেই নৌকার চারপাশজুড়ে থাকছে পদ্মার বিশাল জলরাশি। এর মধ্যে থাকছে স্বপ্নের পদ্মাসেতুও। এছাড়া পদ্মার জলতরঙ্গ, পদ্মার বুকে ঘুরে বেড়ানো ছোট ছোট নৌকা, এমনকি চরের মধ্যে কাশবনের দৃশ্যকে ফুটিয়ে তোলার প্রয়াস চলছে।

মঞ্চের যে নৌকাটি, সেটিও কোনো সাধারণ নৌকা হবে না। এই নৌকায় থাকবে জাতীয় স্মৃতিসৌধের প্রতিকৃতি। নৌকার পালগুলোতে থাকবে দলীয় প্রতীকসহ অন্যান্য বক্তব্য। আর স্মৃতিসৌধের পেছনের দিকে থাকবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিচ্ছবি। এছাড়া নৌকার পেছনের দিকে থাকবে জাতীয় চার নেতাসহ বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে বিভিন্ন সময় অবদান রাখা রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের ছবি। এছাড়া সম্মেলনস্থলে সরকারের বিভিন্ন মেগা প্রকল্পের ফেস্টুন ও উন্নয়নের ছবি তুলে ধরা হবে। 

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবউল আলম হানিফ ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, আমাদের সম্মেলনের প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন। কাউন্সিলের কয়েকটি অংশ আছে। প্রথমেই মঞ্চ ও সাজসজ্জা, ঘোষণাপত্র গঠনতন্ত্র  সাংগঠনিক কার্যক্রম কাউন্সিল নিয়ে প্রতিবেদন পেশ করাসহ অনেকগুলো দিক আছে। সম্মেলনে ৬ থেকে ৭ হাজার কাউন্সিল এবং ৩০ হাজারের মতো ডেলিকেট থাকবে।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী ডেইলি বাংলাদেশকে বলেন, প্রতি তিন বছর পর পর আমাদের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী একমাত্র আওয়ামী লীগ সম্মেলন করে, অন্য কোনো দল নিয়মিত করে না। আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। এবার সন্মেলনে বিদেশি কোনো অতিথি থাকবে না।

রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর