সোমবার   ১৪ অক্টোবর ২০১৯   আশ্বিন ২৯ ১৪২৬   ১৪ সফর ১৪৪১

পিরোজপুর সংবাদ
২৫

পাকিস্তানকে ধবলধোলাই করে খরা কাটাল শ্রীলঙ্কা

প্রকাশিত: ৯ অক্টোবর ২০১৯  

লাহোরে টি-টোয়েন্টি সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে শ্রীলঙ্কার কাছে ১৩ রানে হেরেছে পাকিস্তান। আগে ব্যাট করে ৭ উইকেটে ১৪৭ রান তুলেছিল সফরকারি দল। সাদামাটা এ সংগ্রহ তাড়া করতে নেমে পুরো ২০ ওভার খেলেও জয় তুলে নিতে পারেনি স্বাগতিকেরা। ৬ উইকেটে ১৩৪ রানেই থেমেছে পাকিস্তানের ইনিংস। এতে তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজে ৩-০ ব্যবধানে ধবলধোলাই হলো পাকিস্তান। দ্বিপক্ষীয় তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে এই প্রথম কোনো দলকে ৩-০ ব্যবধানে ধবলধোলাই করল শ্রীলঙ্কা।

ইনিংসের প্রথম বলেই ওপেনার ফখর জামানকে হারিয়ে বিপদে পড়েছিল পাকিস্তান। এরপর বাবর আজম-হারিস সোহেলের জুটিতে ভর করে প্রথম ১০ ওভার শেষে জয়ের পথেই ছিল স্বাগতিকেরা। ১০ ওভার শেষে পাকিস্তানের সংগ্রহ ছিল ১ উইকেটে ৬৩। লাহিরু কুমারা ১২তম ওভারে বাবরকে (৩২ বলে ২৭) তুলে নেওয়ার পর ধীরে ধীরে ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়তে শুরু করে পাকিস্তান। শেষ ৫ ওভারে ৫৪ রান দরকার ছিল দলটির। হাতে ছিল ৮ উইকেট। টি-টোয়েন্টি র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষস্থানীয় পাকিস্তান এখান থেকে ম্যাচটি জিততে পারেনি!

উল্টো র‌্যাঙ্কিংয়ে সাতে থাকা লঙ্কানরা নিয়ন্ত্রিত বোলিং আর দুর্দান্ত ফিল্ডিং করে সাদামাটা স্কোর থেকেই জয় তুলে নিয়েছে। ১৭ থেকে ১৮তম ওভারে মাত্র ৯ বলের ব্যবধানে ৩ উইকেট হারায় সরফরাজ আহমেদের দল। এতে শেষ দুই ওভারে হাতে ৪ উইকেট নিয়ে ৩৭ রানের লক্ষ্যে পৌঁছানো আর সম্ভব হয়নি তাদের জন্য। শেষ ওভারে জয়ের জন্য দরকার ছিল ২৮ রান। ওয়াহাব রিয়াজ ও ইফতিখার আহমেদ মিলে নিতে পেরেছেন ১৪ রান। এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো টি-টোয়েন্টি সিরিজে ৩-০ ব্যবধানে ধবলধোলাই হলো পাকিস্তান। ২০১৫ সালে আরব আমিরাতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে একইভাবে ধবলধোলাই হয়েছিল দলটি।

পাকিস্তানের হয়ে সর্বোচ্চ ৫২ রান এসেছে হারিস সোহেলের ব্যাট থেকে। অধিনায়ক সরফরাজ ১৭ রান করলেও ১৬টি ডেলিভারি খেলায় শেষ দিকে চাপে পড়েছে পাকিস্তান। শ্রীলঙ্কার হয়ে ২১ রানে ৩ উইকেট নিয়েছেন ওয়ানিন্দু হাসারঙ্গা। এর আগে ব্যাট করতে নেমে শ্রীলঙ্কার ইনিংস প্রায় একাই টেনেছেন ওসাদা ফার্নান্দো। ৪৮ বলে ৭৮ রান করেন পাঁচে নামা এ ব্যাটসম্যান।

এই বিভাগের আরো খবর