• শনিবার   ০৬ মার্চ ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ২১ ১৪২৭

  • || ২২ রজব ১৪৪২

পিরোজপুর সংবাদ
ব্রেকিং:
করোনার ভ্যাকসিন নিলেন প্রধানমন্ত্রী দেশের উন্নয়নে গবেষণা ও বিজ্ঞানের বিবর্তন অপরিহার্য: প্রধানমন্ত্রী করোনা পারে নাই, আর কেউ অগ্রযাত্রা থামাতে পারবে না: প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশকে অভিনন্দন জানাল জাতিসংঘ দেশেই ডিজিটাল ডিভাইস উৎপাদন ও রফতানির পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর ‘অবৈধভাবে যারা ক্ষমতায় বসে তারাই দেশকে অস্থিতিশীল করে’ চার মাসে ‘অবশ্যই’ ৪৪২ প্রকল্প সমাপ্তির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর সরকারি ব্যয়ে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে সিএজি’র প্রতি আহ্বান ঢাকা-জলপাইগুড়ি যাত্রীবাহী ট্রেন উদ্বোধন করবেন হাসিনা-মোদি আরো টিকা কেনার টাকা প্রস্তুত রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

পিরোজপুরে ৩৭৫ জন গৃহহীন পরিবারকে জমি ও ঘর প্রদান

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ২৩ জানুয়ারি ২০২১  

পিরোজপুর প্রতিনিধিঃ ‘মুজিব শতবর্ষে বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহহীন থাকবেনা’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এই ঘোষণা বাস্তবায়নে সরকারের আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় পিরোজপুরে প্রথম পর্যায়ে ৩৭৫ জন ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ঘরের জমির দলিল ও চাবি তুলে দিলেন।

আজ শনিবার সকালে পিরোজপুর সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. বশির আহমেদের সভাপতিত্বে  জেলা প্রশাসক আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেন প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে ঘরের জমির দলিল ও চাবি তুলে দিয়েছেন।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খান, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য এ কে এম এ আউয়াল, সহ-সভাপতি শাহজাহান খান, সাধারণ সম্পাদক এম এ হাকিম হাওলাদার,অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. হুমায়ুন কবির, প্রেস ক্লাব সভাপতি মুনিরুজ্জামান নাসিম, জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আক্তারুজ্জামান ফুলু, সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউল আহসান সহ সাংবাদিক, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও জনপ্রতিনিধি এবং যারা ঘর পেয়েছেন।

প্রথম ধাপে নির্মিত ৩৭৫ জন ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারকে ২ শতাংশ খাস জমির মালিকানা দিয়ে বিনা পয়সায় দুই কক্ষবিশিষ্ট ঘর মুজিববর্ষের উপহার হিসেবে  প্রদান করা হয়। এর মধ্যে পিরোজপুর সদর উপজেলায়  ৩৫,নাজিরপুরে  ৫৫, নেছারাবাদে ৭৫, ভান্ডারিয়ায় ৪৫, ইন্দুরকানিতে ৭৫,কাউখালীতে ৫০ এবং মঠবাড়িয়া উপজেলায় ৪০ টি ঘর ও দলিল হস্তান্তর করা হয়। 

পরবর্তী পর্যায়ে নির্মানাধীন বাকি ৮০০ ঘর পর্যায়ক্রমে নির্মানের মাধ্যমে প্রদান করে ৮০০টি পরিবারকে পুনর্বাসন করা হবে বলেও জানানো হয়। ১ লক্ষ ৭১ হাজার টাকা ব্যায়ে ০২ শতাংশ জমির উপর প্রতিটিতে ২টি থাকার রুম, একটি বারান্দা, একটি রান্না ঘর ও একটি স্বাস্থ্যসম্মত লেট্রিন রয়েছে।