• সোমবার   ০৮ মার্চ ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ২৪ ১৪২৭

  • || ২৪ রজব ১৪৪২

পিরোজপুর সংবাদ

বিএনপিতে মহাসচিবকে উপেক্ষা

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ২৫ জানুয়ারি ২০২১  

উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দেড় বছর আগে টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি কাজী শহীদুল ইসলাম মুন্সীর দলের সব পদ স্থগিত করা হয়। তবে পরবর্তীতে শহীদুলের বিরুদ্ধে আনা ‘অভিযোগ সঠিক নয়’ বলে তার পদ ফিরিয়ে দেয়ার সুপারিশ করেন খোদ বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তবে প্রায় দেড় বছর আগে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকে দেয়া সেই নির্দেশনা এখনো বাস্তবায়িত হয়নি।

শুধু বাসাইলের শহীদুল নয়, বিএনপিতে এমন ঘটনা অহরহ ঘটছে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা। তাদের মতে, ব্যক্তির পছন্দ-অপছন্দকে কেন্দ্র করে বহিষ্কার ও অব্যাহতির ঘটনা হরহামেশাই ঘটছে দলটিতে। অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জেরেই বিএনপির মহাসচিবের সুপারিশ আমলে নেয়া হয় না বলে কানাঘুষা আছে।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, শুধু তাই নয়, এক যুগের বেশি সময় ধরে ক্ষমতার বাইরে থাকা বিএনপির অভ্যন্তরীণ কোন্দল এখন একেবারেই প্রকাশ্যে এসেছে। দলের শীর্ষ নেতারাও প্রায় সব সময়ই একে অন্যের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে ক্ষোভ ঝাড়ছেন। 

এছাড়া নীতিনির্ধারকদের মতামতকে পাশ কাটিয়ে সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের ঘটনাও আছে বিস্তর। ফলে কেন্দ্র থেকে তৃণমূল পর্যন্ত নেতাকর্মীদের মধ্যে অবিশ্বাসের জন্ম হয়েছে। স্থবির হয়ে পড়েছে সাংগঠনিক তৎপরতাও।

জানা গেছে, দল থেকে বাদ পড়া শহীদুল দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাদের কাছে ধরনা দিলেও ফয়সালা করতে না পেরে চিঠি লেখেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে। ওই চিঠিতে তিনি দাবি করেন, বিনা অপরাধে তার দলের পদ স্থগিত করা হয়েছে। এটি ফিরিয়ে দেয়া হোক। 

এ আবেদনে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্থগিতাদেশ প্রত্যাহারের সুপারিশ করে লেখেন, ‘জনাব রিজভী, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব, অনুগ্রহপূর্বক বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের ব্যবস্থা নিন।’

এদিকে বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে একাধিকবার রুহুল কবির রিজভীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কথা বলেননি। অন্যদিকে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কথা বলতে বিব্রত বোধ করেন।