• মঙ্গলবার   ০৭ এপ্রিল ২০২০ ||

  • চৈত্র ২৩ ১৪২৬

  • || ১৩ শা'বান ১৪৪১

পিরোজপুর সংবাদ
ব্রেকিং:
দীর্ঘদিন জেলখাটা আসামিদের মুক্তির নীতিমালা করার নির্দেশ প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়ন হলে অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াবে: অর্থমন্ত্রী করোনা: ৭৩ হাজার কোটি টাকার আর্থিক সহায়তা প্যাকেজ ঘোষণা বেসরকারি হাসপাতাল চিকিৎসা না দিলেই ব্যবস্থা: স্বাস্থ্যমন্ত্রী প্রতি উপজেলা থেকে নমুনা সংগ্রহ করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর আজ থেকে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে সেনাবাহিনী মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে সমালোচনা করছে বিএনপি : কাদের দেশে আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত ২৬ জন সুস্থ : স্বাস্থ্যমন্ত্রী সেনাবাহিনী কতদিন মাঠে থাকবে সরকার বিবেচনা করবে: সেনাপ্রধান শেষ হলো পদ্মাসেতুর সবক’টি পিলার বসানোর কাজ
১৪৮

বিএনপির রাজনীতি থেকে অবসর নিচ্ছেন ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ৬ নভেম্বর ২০১৯  

বিএনপির রাজনীতি থেকে অবসর নিচ্ছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ। একাধিক গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ বিভিন্ন সংবাদের উপাত্ত বিশ্লেষণ করে এই তথ্যের সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদের হঠাৎ রাজনীতি ছাড়ার বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে লন্ডন বিএনপি নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ রাজনীতিতে অনেক সিনিয়র একজন ব্যক্তি। খুব চতুর শ্রেণির মানুষ। সুযোগ পেলেই তার হৃদয়ে দল পাল্টানোর বাতাস প্রবাহিত হয়। যখন জাতীয় পার্টির জয় জয়কার, তখন তিনি এরশাদের খোলে বাসা বেঁধেছিলেন। এরপর বিএনপির রমরমা অবস্থায় খালেদা জিয়ার আশেপাশে থেকে নেতা সাজেন। বিভিন্ন কমিটিতে পছন্দমতো ব্যক্তিদের মনোনয়ন দিয়ে হাজার হাজার কোটি টাকাও কামিয়ে নিয়েছেন তিনি।

এ বিষয়ে ব্যারিস্টার মওদুদের মতামত জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি চিন্তা করেছি অবসর নেব। কিন্তু সেটি হয়তো এখনই কিনা বলতে পারছি না। রাজনীতিতে অবসর বলে কিছু নেই। আপনি বড়জোর দলত্যাগ করতে পারেন বা নির্জীব থাকতে পারেন। দলত্যাগ আর নির্জীব থাকা এক নয়। যদিও আমি দলত্যাগের কথা একটিবারও বলিনি। বিষয়টি শুনতে খারাপ লাগলেও এটি সত্য যে, বিএনপির রাজনীতিতে আর ক্রেজ খুঁজে পাই না। দলের অভ্যন্তরেও নানা বানোয়াট মিথ্যাচার ছড়ানো হচ্ছে আমাকে নিয়ে। আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলেও বিএনপির রাজনীতি প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে। আর এ কারণে নিজেকে গুটিয়ে নেবার চিন্তা করছি।

মওদুদ আহমেদ আরো বলেন, যে আশা, যে আদর্শকে সামনে রেখে বিএনপিতে যোগদান করেছিলাম, সে আদর্শ থেকে বিএনপির বিচ্যুতি ঘটেছে। যে কারণে শমসের মুবিন চৌধুরী বিএনপিকে ত্যাগ করেছেন। সঙ্গে ব্যারিস্টার আন্দালিব পার্থ’র বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি ২০ দলীয় জোট থেকে সরে গিয়েছে। অনেকটা সেসব দুঃখ, কষ্ট, ক্লেশ নিয়ে আমি আপাতত বিএনপির রাজনীতি থেকে দূরে থাকতে চাই।

রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর