সোমবার   ১৪ অক্টোবর ২০১৯   আশ্বিন ২৯ ১৪২৬   ১৪ সফর ১৪৪১

পিরোজপুর সংবাদ
১৭

বিশুদ্ধ পানি উৎপাদনে বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ার রোল মডেল

প্রকাশিত: ১০ অক্টোবর ২০১৯  

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘নাগরিকদের নিরাপদ পানি নিশ্চিতে সরকার সবধরণের পদক্ষেপ নিয়েছে। এক্ষেত্রে ওয়াসা রাজধানী ঢাকাসহ বিভাগীয় শহরে শতভাগ নিরাপদ পানি দিতে কাজ করে যাচ্ছে। ওয়াসার এ সেবা বিশ্বের জন্য রোল মডেল।’

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে পদ্মা-যশলদিয়া প্রকল্প, সাভার উপজেলার তেঁতুলঝরা-ভাকুর্তা এলাকায় ওয়েল ফিল্ড নির্মাণ (১ম পর্ব) ও  রুপগঞ্জের গন্ধর্বপুর পানি শোধনাগার স্থাপনের ভিত্তি প্রস্তর উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, পানি পেতে সাধাণ মানুষের যাতে কষ্ট না হয় তার জন্য আওয়ামী লীগ সরকার নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। সরকার জনগণের সেবায় সবসময় সজাগ। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ভূগর্ভস্থ পানি উত্তলন করার ফলে নানা ধরণের সমস্যা দেখা দিচ্ছে। এ জন্য ভূ উপরস্থ পানি যাতে ব্যবহার হয় তার পদক্ষেপ নিয়েছি।’

তিনি বলেন, ‘নগরীর সাধারণ মানুষ যাতে নিরাপদ পানি ব্যবহার করতে পারে, সেজন্য সায়েদাবাদ-১ ও সায়েদাবাদ-২ নামে পানি উত্তোলনের দুটি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরও বলেন, ‘পানি ব্যবহারে সবাইকে সচেতন হতে হবে। বস্তিবাসীদের জন্য নিরাপদ পানির ব্যবস্থা করা হয়েছে। তাদের জন্য ফ্ল্যাট করা হচ্ছে। তবে তাতে ভাড়া দিয়ে থাকতে হবে। যা দৈনিক, সাপ্তাহিক ও মাসিক কিস্তিতে দিতে পারবেন।

তিনি বলেন, আর্সেনিক মোকাবেলায় প্রকল্প নেয়া হচ্ছে। এছাড়া, রাজধানীতে বিশুদ্ধ পানি নিশ্চিত এবং পানি সংরক্ষণ করা হবে। পানি উৎপাদনে দেশ শতভাগ সফল।

তিনি আরো বলেন, ইউনিয়ন পর্যায়ে সব ধরনের নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করতে কাজ করছে সরকার। বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ, ঢাকার চারপাশে চারটি নদী রয়েছে। তবে দূষণ একটা সমস্যা। আমরা দূষণ প্রতিরোধ এবং নদীগুলোর নাব্য বাড়ানোর চেষ্টা করছি। এসডিজি’র (সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা) ষষ্ঠ লক্ষ্যমাত্রা ও আমাদের সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনায়ও সবার জন্য সুপেয় পানির কথা বলা হয়েছে। ডেল্টা প্ল্যান ২০৩০-এও এটা আছে। রাজধানীর চারপাশে নতুন জলাধার তৈরি করা হচ্ছে।’নদী রক্ষায় ড্রেজিং করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে ইরিগেশন প্ল্যান্ট বাস্তবায়নের কাজ চলছে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রযুক্তিগত সেবা শহর থেকে গ্রামে পৌঁছে দিতে কাজ করছে সরকার। ইতিমধ্যে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণ করা হয়েছে। প্রযুক্তির সেবা সহজ করতে আরো একটি স্যাটেলাইট তৈরির পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে সরকার।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম, স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তরা উপস্থিত ছিলেন। আর প্রকল্পের তিনটি এলাকায় উপস্থিত ছিলেন সংশ্লিষ্ট প্রকল্প পরিচালকসহ ওয়াসার কর্মকর্তারা। 

এই বিভাগের আরো খবর