বুধবার   ২০ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৫ ১৪২৬   ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

পিরোজপুর সংবাদ
৬৫

ভারতের মনিপুরের স্বাধীনতা ঘোষণা

প্রকাশিত: ৩০ অক্টোবর ২০১৯  

স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছে ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য মনিপুরের ভিন্ন মতাবলম্বী রাজনীতিকরা। লন্ডনে বসে এ ঘোষণা দেওয়ার পাশাপাশি একটি প্রবাসী সরকারও গঠন করেছে তারা। প্রবাসী সরকারকে সমর্থন দিতে বিশ্বের স্বাধীন দেশের সরকার প্রধানকে আহ্বান জানিয়েছে তারা।

মনিপুরের মহারাজার পক্ষ থেকে মনিপুর রাজ্য পরিষদের মুখ্যমন্ত্রী ইয়ামবেন বিরেন এবং মনিপুর রাজ্য পরিষদের বৈদেশিক সম্পর্ক ও প্রতিরক্ষা বিষয়ক মন্ত্রী নারেংবাম সমরজিত প্রবাসী সরকার গঠনের ঘোষণা দেন।

লন্ডনে সংবাদ সম্মেলনে স্বঘোষিত মনিপুর স্টেট কাউন্সিলের পররাষ্ট্র মন্ত্রী নারেংবাম সমরজিত বলেন, লন্ডনে বসেই প্রবাসী সরকার মনিপুরের স্বীকৃতি আদায়ে জাতিসঙ্ঘে তৎপরতা চালাবে। তিনি বলেন, আমরা এখানে বসেই প্রবাসী সরকারের কার্যক্রম চালাবো। এসময় তিনি মনিপুরের স্বাধীনতার ঘোষণা দেন। আশা করছি অনেক দেশই আমাদের স্বাধীনতাকে স্বীকৃতি দেবে।

তিনি আরও বলেন, মনিপুর রাজ্যের রাজনৈতিক সমস্যার সমাধানে মহারাজা তাদের ক্ষমতা প্রয়োগের অধিকার দিয়েছেন বলে একটি নথি দেখিয়েছেন তারা। ওই দুই মন্ত্রী বলেন, ভারতে দমন-নিপীড়ন থেকে বাঁচতে তারা দেশ ছেড়ে পালাতে বাধ্য হয়েছেন। চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে ব্রিটেনের কাছে আশ্রয় চেয়েছেন বলে নিশ্চিত করেন তারা।

তারা জানিয়েছেন ভারতে থেকে স্বাধীনতার ঘোষণা দিলে তারা হয়তো গ্রেফতার হতে পারেন অথবা ভারতের নিরাপত্তা বাহিনী তাদের হত্যা করতে পারে।

এক ঘোষণায় তারা বলেন, আমরা বিশ্বাস করি যে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সামনে মনিপুর সরকারের স্বাধীনতা ঘোষণার এটাই সঠিক সময়। আমরা জাতিসংঘের প্রতিটি সার্বভৌম সরকারকে আহ্বান জানাচ্ছি যে, তারা আজ থেকে যেন মনিপুরের নির্বাসিত সরকারকে স্বীকৃতি দেয়। মনিপুরের ৩০ লাখ বাসিন্দা স্বাধীনতার স্বীকৃতি চায় বলেও উল্লেখ করেন তারা।

মনিপুরের এই দুই নেতা আরও জানিয়েছেন, ভারত সরকারের কাছ থেকে তারা ঘৃণা এবং শত্রুতা ছাড়া আর কিছুই পাননি। তারা বলেন, ভারতের অবস্থানের সময় তাদের পক্ষে স্বাধীনতার ঘোষণা মোটেও সহজ ছিল না।

মনিপুরের এই নেতারা বলেন, মনিপুরে গত ১০ বছরে অন্যায়ভাবে প্রায় সাড়ে চার হাজার মানুষকে হত্যা করা হয়েছে। এছাড়া আরও দেড় হাজারের বেশি মানুষকে অবৈধভাবে বন্দি করা হয়েছে। গত কয়েক দশকে প্রায় ১৫ হাজার মানুষ প্রাণ হারিয়েছে।

উল্লেখ্য, ভারতের সেভেন সিস্টার্স ভারতের অন্যতম ছোট রাজ্য হচ্ছে মনিপুর। সেখানে মাত্র ২৮ লাখ লোকের বাস। এই রাজ্যটি তথাকথিত ‘সেভেন সিস্টার্স’-র একটি। দীর্ঘদিন ধরে স্বাধীনতার দাবিতে সহিংস কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে বিচ্ছিন্নতাবাদীরা।

এই বিভাগের আরো খবর