• সোমবার   ১৯ এপ্রিল ২০২১ ||

  • বৈশাখ ৬ ১৪২৮

  • || ০৬ রমজান ১৪৪২

পিরোজপুর সংবাদ

মঠবাড়িয়ায় বাম্পার ফলনের আশায় বোরো ধান চাষে ব্যস্ত কৃষকরা

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ২৮ জানুয়ারি ২০২১  

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় বাম্পার ফলনের আশায় চলতি মৌসুমে বোরো (ইরি) ধান চাষে ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকরা। উপজেলার মিরুখালী, বেতমোর, দাউদখালী ও সদর মঠবাড়িয়া ইউনিয়ন সহ বিভিন্ন এলায়ক ঘুরে দেখা গেছে প্রচন্ড শীত, ঘন কুয়াশা উপক্ষো করে বীজ তোলা, রোপন করা, চাষ, সেচ ও পরিচর্যায় ব্যস্ত রযেছেন কৃষকরা। যতদুর চোখ যায় মাঠে সবুজ আর সবুজ।

উপজেলার মিরুখালী ইউনিয়নের ছোট হারজি গ্রামের কৃষক মো. মনিরুজ্জামান (৫৫) জানান, গত ৫ বছর আগে প্রথমে ১ একর জমিতে তিনি বোরো আবাদ শুরু করেন পাশাপশি বাজারে কাপড়ের ব্যবসা করতেন। ব্যবসার চেয়ে কৃষি কাজে বেশী লাভ দেখে ব্যবাসার পরিধি গুছিয়ে কৃষি কাজে লেগে পরেন। এ বছর কাপড়ের ব্যবসা সম্পূর্ণ বন্ধ করে ৪ একর জমিতে বোরো (ইরি) ধান চাষ করেছেন। তার দেখা-দেখি এলাকার প্রায় সকল কৃষকই কৃষি কাজে ঝুঁকে পরেছেন।

ওই গ্রামের কৃষক আব্দুল হক, আবুল কালাম ও মানিক খান কৃষি কাজে তারা ব্যপক সফলতা পেয়েছেন বলে জানান। দূর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া না হলে ইরি ধানের বাম্পার ফলন হবে বলেও তারা জানান। ধান-চালের ভালো দাম পাওয়ায় তারা সন্তোশ প্রকাশ করেছেন।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. শওকত হোসেন জানান, করোনা পরিস্থিতির কারনে দেশের খাদ্য ঘটতি কমিয়ে আনার লক্ষে সরকারি প্রনোদনা ও পূণঃবাসন এর মাধ্যমে কৃষকদের সার ও বীজ দিয়ে সহায়তা করা হয়েছে এবং কৃষি কাজে উদ্ভুদ্ধ করা হয়েছে। কৃষকরা ধান-চালের ভালো দাম পাওয়ায় চাষাবাদে মন দিয়েছেন। চলতি বছরে উচ্চ ফলন শীল (উফশী) ২ হাজার ৫‘শ ২০ হেক্টর ও হাইব্রিড ৯‘শ ৬০ হেক্টর ( ৮ হাজার ৭‘শ একর) জমিতে বোরো (ইরি) ধান চাষাবাদ করা হচ্ছে। গত বছরের চেয়ে ২২‘শ ৮০ হেক্টর জমি বেশী চাষাবাদ হচ্ছে। আগামী বছরে চাষাবাদের পরিধি আরও বাড়বে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।