শুক্রবার   ১৫ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ১ ১৪২৬   ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

পিরোজপুর সংবাদ
৬৬

মঠবাড়িয়ায় স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদন্ডাদেশ

প্রকাশিত: ২৯ অক্টোবর ২০১৯  

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি: পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় স্ত্রীকে নির্মম ভাবে হত্যার অপরাধে উপজেলার বড় শৌলা গ্রামের আবুল কালামকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদন্ড প্রদানের আদেশ দিয়েছে পিরোজপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্র্যাইব্যুনাল আদালত। মঙ্গলবার দুপুরে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্র্যাইব্যুনালের বিচারিক হাকিম মো. মিজানুর রহমান আসামীর অনুপস্থিতিতে চাঞ্চল্যকর এ মামলার রায় ঘোষণা করেন।

মামলা সূত্রে জানাগেছে, দন্ডপ্রাপ্ত আসামী আবুল কালাম তার স্ত্রী জেসমিন বেগমকে যৌতুকের দাবীতে বিভিন্ন সময়ে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতো। গত ২০১৫ সালের ১২ সেপ্টেম্বর আবুল কালাম যৌতুকের দাবীতে স্ত্রী জেসমিন বেগমকে পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। গুরুতর আহত জেসমিনকে প্রথমে খুলনা চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে ঢাকায় নেয়ার পথে ভাঙ্গা নামক স্থানে গত ১৪ সেপ্টেম্বর তার মৃত্যু ঘটে।

১৫ সেপ্টেম্বর নিহত জেসমিনের ভাই সাইফুল হক বাদী হয়ে মঠবাড়িয়া থানায় আবুল কালামকে আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ এর ১১(ক) ধারায় মামলা দায়ের করেন।

মঠবাড়িয়া থানার এস.আই মোঃ আব্দুল হক এ মামলাটি তদন্ত শেষে ওই বছরের ৪ নভেম্বর আসামীর বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ পত্র দাখিল করে। পিরোজপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্র্যাইব্যুনালের বিচারক জেলা ও দায়রা জজ মিজানুর রহমান মামলার দীর্ঘ শুনানি শেষে পলাতক আসামী আবুল কালামকে মৃত্যুদন্ডের আদেশ দেন এবং একই সাথে ১ লক্ষ টাকা অর্থ দন্ডে দন্ডিত করেন।

মামলায় সরকার পক্ষের বিশেষ পিপি এ্যাড. আব্দুর রাজ্জাক খান বাদশা এবং পলাতক আসামীর পক্ষে রাষ্ট্র নিয়োজিত আইনজীবি নুরুল ইসলাম বাদশা মামলাটি পরিচালনা করেন।

 

এই বিভাগের আরো খবর