শনিবার   ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০   ফাল্গুন ১৭ ১৪২৬   ০৫ রজব ১৪৪১

পিরোজপুর সংবাদ
ব্রেকিং:
ছেলেমেয়েদের প্রতিযোগী সক্ষম করে গড়ে তুলতে হবে: প্রধানমন্ত্রী করোনা ভাইরাস নিয়ে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বঙ্গবন্ধু অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ দিয়েছেন : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মশা যেন ভোট খেয়ে না ফেলে, নতুন মেয়রদের প্রধানমন্ত্রী তাপস-আতিককে শপথ পড়ালেন প্রধানমন্ত্রী এক ঘণ্টায় করোনা ভাইরাস শনাক্ত করা সম্ভব: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শিশুদেরকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করতে হবে : স্পিকার ব্যাংক বন্ধ হলে ১ লাখ টাকা পাওয়ার তথ্য গুজব : কেন্দ্রীয় ব্যাংক নারীরা নিকাহ রেজিস্ট্রার হতে পারবে না: হাইকোর্ট ডাকঘর সঞ্চয় স্কিমের সুদ হার আগের মতো ১৭ মার্চ থেকে : অর্থমন্ত্রী
৬৭

মেসি আমাকে সেরা খেলোয়াড় বানিয়েছে: রোনালদো

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ২২ আগস্ট ২০১৯  

গত এক যুগেরও বেশি সময় ধরে ফুটবল সমর্থকদের মনে কেবল একটি প্রশ্নই ঘুরছে। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো এবং লিওনেল মেসির মধ্যে কে সেরা? এখনো অমীমাংসিত রয়ে গেছে সেই প্রশ্নোত্তর। তবে সমাধানে আসার আগে রোনালদো নিজেই দিলেন এক গোপন তথ্য।

বুধবার (২১ আগস্ট) পর্তুগিজ উইঙ্গার জানালেন, আর্জেন্টাইন মহাতারকা মেসির সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা তাকে ‘সেরা খেলোয়াড়’ ও ‘স্বাস্থ্যবান’ বানিয়েছে। 

গত মৌসুমে জুভেন্টাসে যাওয়ার আগে রোনালদো রিয়াল মাদ্রিদে এবং মেসি বার্সেলোনার হয়ে নিজেদের নিয়ে গেছেন অনন্য উচ্চতায়। টানা দশ বছর উভয়ে পাঁচবার করে জিতেছেন ব্যালন ডি’অর। সময়ের সেরা দুই মহাতারকা ব্যক্তিগতভাবে যেমন ছিলেন প্রতিদ্বন্দ্বি তেমনি খেলেছেন স্পেনের দুই চিরশত্রু ক্লাবে। তাই কখনো বন্ধুত্ব হয়ে ওঠেনি রোনালদো-মেসির মধ্যে। তবে সিআর সেভেন স্পেন ছেড়ে ইতালিতে চলে যাওয়ায় বেশ হতাশ হয়েছিলেন মেসি। 

রোনালদো মনে করিয়ে দিলেন তা আরেকবার। পর্তুগালের টিভিআই নামক এক গণমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ৩৪ বছর বয়সী তারকা বলেন, ‘আমি তার (মেসি) ক্যারিয়ার এবং দলকে প্রশংসা করি। আমি যখন স্পেন ছাড়লাম সে হতাশ হয়েছিল। কারণ সে আমাদের মধ্যকার প্রতিদ্বন্দ্বিতা পছন্দ করতো।’ 

সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ ফরোয়ার্ড বলেন, ‘এটা ভাল প্রতিদ্বন্দ্বিতা ছিল কিন্তু অদ্বিতীয় নয়। বাস্কেটবলে মাইকেল জর্ডানের প্রতিদ্বন্দ্বিতা ছিল। ফর্মূলা ওয়ানে ছিল আয়ারটন সেন্না ও অ্যালেইন প্রোস্টের মধ্যে। বিষয়টা হচ্ছে, এসব স্বাস্থ্যসম্মত প্রতিদ্বন্দ্বিতা। 

রোনালদো আরো বলেন, ‘আমার কোন সন্দেহ নেই যে, মেসি আমাকে সেরা খেলোয়াড় বানিয়েছে এবং উল্টো তার ক্ষেত্রেও এটা প্রযোজ্য। আমি শিরোপা জিতলে সে অবশ্যই মনে ব্যথা পায় আবার সে যখন জিতে তখন আমার ক্ষেত্রেও তা হয়। আমাদের দুজনের একটা চমৎকার পেশাদার সম্পর্ক আছে কারণ আমরা উভয়ে ১৫ বছর একই মুহূর্ত ভাগাভাগি করছি।’

ভবিষ্যতে দুজনের সম্পর্ক মিষ্টিমধুর হবে নাকি এমন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ থাকবে, তার ব্যাপারেও জানালেন রোনালদো, ‘আমরা একসঙ্গে কখনো ডিনার করিনি। ভবিষ্যতে কী হবে তা অজানা। আমি এসবের মধ্যে কোনো সমস্যা দেখি না।’ 

একই সাক্ষাৎকারে অবসরের ব্যাপারে সামান্য ইঙ্গিতও দিলেন পর্তুগিজ উইঙ্গার। রোনালদো জানান, হয় তিনি আগামী বছর বুট জোড়া তুলে রাখবেন নয়তো ৪০ অথবা ৪১ বছর পর্যন্ত খেলে যাবেন। 

এই বিভাগের আরো খবর