বুধবার   ২০ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৬ ১৪২৬   ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

পিরোজপুর সংবাদ
৬৭

যারা বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারকে নিশ্চিহ্ন করেছে তারা আজ ভালো নাই

প্রকাশিত: ৩১ আগস্ট ২০১৯  

পিরোজপুর প্রতিনিধিঃ গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী এ্যাড শ. ম. রেজাউল করিম এমপি বলেছেন, যারা বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারকে নিশ্চিহ্ন করতে চেয়েছিল তারা আজ ভালো নাই। স্বাধীনতা বিরোধী ও প্রতিক্রিয়াশীলরা মিলে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছে। আর বঙ্গবন্ধু’র খুনীদেরকে অগণতান্ত্রিক সরকারগুলো বিভিন্ন সময় পুনর্বাসন করেছে। জিয়াউর রহমান নিজে বঙ্গবন্ধুর খুনীদেরকে দেশের বাইরে পুনর্বাসন করেছেন। আত্মস্বীকৃত খুনীদের বিচার না করে তাদেরকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় প্রতিষ্ঠিত করেছেন। ইনডেমিনিটি অডিন্যান্সকে সংবিধানের অংশে পরিণত করেছেন। এরপর এরশাদ বঙ্গবন্ধুর খুনীদের সরাসরি রাজনীতিতে পুনর্বাসন ও প্রটেকশন দিয়েছেন। সর্বোপরি খালেদা জিয়া ক্ষমতায় এসে বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনীদেরকে বিভিন্ন মিশনে চাকুরী ও পদোন্নতি দিয়েছেন। জিয়াউর রহমান, এরশাদ ও খালেদা জিয়া একইরূপে কলঙ্কজনক অধ্যায় রচনা করে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনীদেরকে সকল প্রকার সুযোগ-সুবিধা দিয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের কর্মীদেরকে ধ্বংস করতে সহায়তা করেছেন। ১৯৭১ এ যারা পরাজিত শক্তিরা প্রতিশোধ নোয়ার জন্য ১৯৭৫ এ বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কিন্তু জীবনের বেশিরভাগ সময় কারাগারে কাটিয়েছেন বাঙালীদের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য। শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর আন্দোলন-সংগ্রাম করে তিনি আবার মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বাংলাদেশকে আবারো প্রতিষ্ঠিত করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট খুনিরা আবারো হত্যাকান্ড চালায়। সে জন্য মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
গতকাল শুক্রবার বিকালে জেলা আওয়ামীলীগের আয়োজনে স্থানীয় টাউন ক্লাব স্বাধীনতা মঞ্চে পিরোজপুরে স্বাধীনতার স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেছেন। সভায় পিরোজপুর জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি শাহজাহান খান তালুকদারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. এম এ হাকিম হাওলাদার, পিরোজপুর পৌর মেয়র ও জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব হাবিবুর রহমান মালেক। সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা যুবলীগের সভাপতি আলহাজ্ব আক্তারুজ্জামান ফুলু, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল আহসান গাজী, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি এ্যাড খান মোঃ আলাউদ্দিন, জেলা আওয়ামীলীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক গৌতম চৌধুরী, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সরদার মতিউর রহমান। আলোচনা সভা শেষে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সকলের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

 

এই বিভাগের আরো খবর