• শনিবার   ০৬ মার্চ ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ২১ ১৪২৭

  • || ২২ রজব ১৪৪২

পিরোজপুর সংবাদ
ব্রেকিং:
করোনার ভ্যাকসিন নিলেন প্রধানমন্ত্রী দেশের উন্নয়নে গবেষণা ও বিজ্ঞানের বিবর্তন অপরিহার্য: প্রধানমন্ত্রী করোনা পারে নাই, আর কেউ অগ্রযাত্রা থামাতে পারবে না: প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশকে অভিনন্দন জানাল জাতিসংঘ দেশেই ডিজিটাল ডিভাইস উৎপাদন ও রফতানির পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর ‘অবৈধভাবে যারা ক্ষমতায় বসে তারাই দেশকে অস্থিতিশীল করে’ চার মাসে ‘অবশ্যই’ ৪৪২ প্রকল্প সমাপ্তির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর সরকারি ব্যয়ে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে সিএজি’র প্রতি আহ্বান ঢাকা-জলপাইগুড়ি যাত্রীবাহী ট্রেন উদ্বোধন করবেন হাসিনা-মোদি আরো টিকা কেনার টাকা প্রস্তুত রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

লোহার জিনিস আটকে যায় এই ‘চুম্বক মানবের’ শরীরে

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ২ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

চামচ, পেরেক, ইস্ত্রি কিংবা লোহার যাবতীয় বস্তু সবই আটকে যায় তার শরীরে। চুম্বকের মতো সব লোহার বস্তুকে কাছে টেনে নেয় তার শরীর। এসব গায়ে নিয়েই হেঁটে বেড়াতে পারেন তিনি। তার নাম অরুণ রায়কর। ৪২ বছর বয়সী এ ব্যক্তি থাকেন ভারতের মধ্যপ্রদেশের সাগর জেলায়। পেশায় তিনি একজন ফটোগ্রাফার। তবে নিজের এ শক্তি সম্পর্কে অরুণের কোনো ধারণা ছিল না।

একদিন ঘটনাক্রমে হাতুরি ও পেরেক দিয়ে টেবিল মেরামতের সময় অবিশ্বাস্য ঘটনা ঘটে। অরুণ দেখতে পান তার বুকে একটি পেরেক হঠাৎ আটকে আছে। প্রথমে ভেবেছিলেন, হয়তো ঘামের কারণে পেরেকটি বুকে লেগে গেছে। এরপর তিনি আরও কয়েকটি পেরেক নিজের বুকে লাগানোর চেষ্টা করেন। দেখলেন, লোহার পেরেকগুলো সামনে ধরলেই বুকে ও পেটে লেগে যাচ্ছে। ঠিক যেমন চুম্বক কাছে টেনে নেয় লোহাকে, ঠিক তেমনটিই ঘটে অরুণের সঙ্গে।

এরপর বিষয়টি নিয়ে চিকিৎসকের সঙ্গেও পরামর্শ করেন অরুণ। তারাও অবাক হয়েছেন বিষয়টি দেখে। এ বিষয়ে ভারতীয় গণমাধ্যম ডা. শৈলেন্দ্র শুক্লা বলেন, তার শরীরে চৌম্বকীয় শক্তির প্রমাণ পেয়েছি। যা সত্যিই মানব শরীরে থাকার ঘটনা বিরল। অরুণের শরীরে যে ম্যাগনেট রয়েছে, তার সাহায্যেই আমরা এমআরআই এবং ইসিজি স্ক্যান করে থাকি। তবে অরুণের শরীরে চৌম্বকীয় শক্তির ক্ষেত্র বাড়লেও তা সময়ের সঙ্গে সঙ্গে চলে যাবে।

অরুণ এ বিষয়ে বলেন, প্রথমে ভেবেছিলাম আমার এ অলৌকিক শক্তির কারণ বোধ হয় সৃষ্টিকর্তার অভিশাপ। তবে এটিকে আমি এখন সর্বশক্তিমানের আশীর্বাদ বলে মনে করি। যখন আমার এলাকার মানুষ বিষয়টি জানে তখন তারা আমাদের বাড়ির আশপাশ থেকেও আশা-যাওয়া বন্ধ করে দেয়। তখন অনেক কষ্ট পেয়েছিলাম। তবে এখন দূর-দূরান্ত থেকে মানুষ আমাকে একনজর দেখার জন্য আসেন।