• শুক্রবার   ০৭ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৩ ১৪২৭

  • || ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

পিরোজপুর সংবাদ
৭৯

সামাজিক বনায়নে আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন হচ্ছে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

পিরোজপুর প্রতিনিধিঃ পিরোজপুর বন বিভাগের সামাজিক বনায়ন কর্মসূচি জেলার দারিদ্র্য বিমোচনে এবং প্রান্তিক এলাকার দরিদ্র জনগোষ্ঠীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখছে। প্রান্তিক এলাকায় অনেক হতদরিদ্র মানুষ সামাজিক বনায়ন কর্মসূচির মাধ্যমে এখন অনেকেই অর্থনৈতিক ভাবে সাবলম্ভী ও উন্নয়নের আশা দেখছে। বন বিভাগের উদ্যোগে পরিচালিত সামাজিক বনায়ন কর্মসূচিতে উপকৃত হচ্ছে অনেকে এ সামজিক বনায়ন কর্মসূচির সাথে সম্পৃক্ত ব্যক্তিরা ও স্থানীয় পরিবেশনের ভারসম্য রক্ষাও রাখছে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিক।
 

পিরোজপুর বন বিভাগ কার্যালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্য জানা যায়, পিরোজপুর জেলার বিভিন্ন স্থানে সামাজিক বনায়নের জন্য বিভিন্ন ধরনের গাছ লাগানো হয়েছে। এর মধ্যে ফলজ, বনজ ও ঔষধি ১২ হাজার ৫ শত ৬০ টি, নারিকেল গাছ ৮ হাজার টি, খেজুর গাছ ৪ হাজার টি, তাল গাছ ৪ হাজার ২০০ টি, সুপারী গাছ ২ হাজার ২৪০ টি গাছ লাগানো হয়েছে।
 

এদিকে পিরোজপুরের সামাজিক বনায়নের বিষয়ে সার্বিক  খোঁজ-খবর নিয়েছেন বন রক্ষক মোল্লা রেজাউল করিম, বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো: আবুল কালাম, পিরোজপুর বন বিভাগের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: শফিকুল ইসলাম সহ বন বিভাগের কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।
 

সামাজিক বনায়নের সদস্য ইন্দুরকানী উপজেলার আসাদুল ইসলাম জানান, সরকারের সামাজিক বনায়নের কারনে স্থানীয় দরিদ্র জনগোষ্ঠির লোকজন বিভিন্ন ভাবে উপকৃত হচ্ছে। প্রান্তিক এলাকার দরিদ্র জনগোষ্ঠীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের স্বপ্ন দেখছে এই সামাজিক বনায়নের মাধ্যেমে।
 

পিরোজপুর এসএফএনটিসি ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: শফিকুল ইসলাম, সামাজিক বনায়নের মাধ্যমে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন সাধনই হলো এ প্রকল্পের মূল লক্ষ্য। এটির মাধ্যমে হতদরিদ্ররা যেমন উপকৃত হচ্ছেন তেমনি প্রকৃতি, পরিবেশ ও প্রতিবেশ স্বাভাবিক রেখে এ ধরণীকে প্রাণিকুলের বাসযোগ্য রাখতে প্রাকৃতিক বনাঞ্চলের সংরক্ষণ ও উন্নয়ন একান্ত প্রয়োজন।সামাজিক বনায়ন প্রকল্পের মাধ্যমে প্রান্তিক জনসাধারণ উপকৃত হচ্ছেন।

 

পিরোজপুর বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর