রোববার   ২০ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৪ ১৪২৬   ২০ সফর ১৪৪১

পিরোজপুর সংবাদ
৩৫৯

২০১৮ সালের বিশ্বের সেরা ১০টি ট্যুরিস্ট স্পট

প্রকাশিত: ৭ জানুয়ারি ২০১৯  

প্রতিবছর ভ্রমণপিপাসু মানুষদের জন্য বিভিন্ন দেশে নির্মাণ হচ্ছে নতুন নতুন আকর্ষণীয় স্থাপনা। তাই তো বিশাল এই পৃথিবীতে দর্শনীয় স্থানের কোনো শেষ নেই। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে তৈরী হওয়া এরকম ১০০টি দর্শনীয় স্থান নিয়ে তালিকা তৈরি করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বহুল প্রচারিত সংবাদভিত্তিক সাময়িকী টাইম ম্যাগাজিন। ৪৮টি দেশে মোট ১০০টি দর্শনীয় স্থানের এই তালিকাকে তারা World’s Greatest Places 2018 নামে আখ্যায়িত করেছে। সেই তালিকার To Visit ক্যাটাগরির সেরা দশটি দর্শনীয় স্থান নিয়ে থাকছে আজ প্রথম পর্ব।

তিয়ানজিন বিনহাই লাইব্রেরী (চীন)

প্রায় ৩৩ হাজার ৭০০ বর্গমিটার জায়গা জুড়ে চীনের তিয়ানজিনে অবস্থিত এই পাবলিক লাইব্রেরীটি দেখলে আপনার মনে হতেই পারে যেন এটি অন্য গ্রহের মানুষ দ্বারা নির্মিত কোনো স্থাপনা। ৫ তলা উঁচু এই লাইব্রেরীটিতে স্তরে স্তরে সাজানো আছে প্রায় ১৩.৫ লক্ষাধিক বই। এই অত্যাশ্চর্য স্থাপনাটি দেখতে প্রতিদিন এখানে প্রায় ১০ হাজার মানুষ ভিড় করে। ২০১৭ সালে নির্মাণ হওয়া লাইব্রেরীটিতে এই কম সময়ে প্রায় ১৮ লক্ষ মানুষ ভ্রমণ করেছে।

সাইক্লিং থ্রু ওয়াটার (বেলজিয়াম)

২০১৬ সালে নির্মিত ২১২ মিটার দীর্ঘ কংক্রিটের এই সেতুটি বেলজিয়ামের ডি উইজার্ডস নেচারস রিজার্ভে অবস্থিত একটি পুকুরের মধ্যে দিয়ে সাইকেল চালানোর উপযোগী রাস্তা। সেতুটি পানির নিচে এমনভাবে নিমজ্জিত করে বানানো হয়েছে যে, সাইকেল আরোহীদের কাছে মনে হবে তারা যেন পানির মধ্য দিয়েই সাইকেল চালাচ্ছে। এই পথটি এখন পর্যন্ত প্রায় ৫ লক্ষ সাইক্লিস্টকে আকৃষ্ট করতে সক্ষম হয়েছে।

মর্গানস ইন্সপিরেশন আইল্যান্ড (যুক্তরাষ্ট্র)

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে অবস্থিত এই পার্কটি মর্গানের বিনোদনের জন্য তার বাবা গর্ডন হার্টম্যান ২০১০ সালে নির্মাণ করেন। শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধী হওয়ায় মর্গানের জন্য বিশেষভাবে নির্মিত এই পার্কটি সকলের জন্য উন্মুক্ত হলেও সব ধরনের শারীরিক প্রতিবন্ধীদের জন্য এখানে রাখা হয়েছে সর্বোচ্চ সুযোগ সুবিধা। পরবর্তীতে ২০১৭ সালে পার্কটির পাশেই একটি ওয়াটার পার্কও নির্মাণ করেন তিনি।

গোল্ডেন ব্রীজ (ভিয়েতনাম)

ভিয়েতনামের বানা পাহাড়ের উপর অবস্থিত বিশালাকার দুটি হাতের উপর নির্মিত এই ব্রীজটি দেখতে প্রতিদিন হাজারো মানুষ ভিড় করে। নির্মাণ কৌশলগত দিক থেকে হাত দুটিকে দেখলে প্রাচীন কোনো স্থাপনার ধ্বংসাবশেষ বলে মনে হয়। ১৫০ মিটার দীর্ঘ এই ব্রীজটি সর্বসাধারণের জন্য এ বছরের মে মাসে খুলে দেয়া হয়। মূলত এই ব্রীজটি একটি কেবল কার স্টেশনকে নিকটস্থ একটি বাগানের সাথে সংযুক্ত করেছে।

টিপেট রাইজ আর্ট সেন্টার (যুক্তরাষ্ট্র)

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মন্টানায় ১১ হাজার ৫০০ একর বিশাল ভূখণ্ডের উপর নির্মিত হয়েছে এই টিপেট রাইজ আর্ট সেন্টারটি। মূলত প্রকৃতি, শিল্প এবং সঙ্গীতের মধ্যে সমন্বয় সৃষ্টির উদ্দেশ্য নিয়ে ২০১৬ সালে চালু হয় এই স্থাপনাটি। এখানে চিত্র প্রদর্শনী হল ও কনসার্ট হল ছাড়াও বাইরের উন্মুক্ত জায়গা জুড়ে রয়েছে বিশাল আকৃতির কিছু ভাস্কর্য।

প্যানডোরা: দ্য ওয়ার্ল্ড অব অ্যাভাটার (যুক্তরাষ্ট্র)

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় অবস্থিত ওয়ার্ল্ড ডিজনি ওয়ার্ল্ড রিসোর্টের একটি উল্লেখযোগ্য অংশ ডিজনি এনিমেল ল্যান্ড থিম পার্ক। আর এই ডিজনি এনিমেল ল্যান্ডের সাম্প্রতিক সংযোজন হলো এই প্যানডোরা। জেমস ক্যামেরুনের বিখ্যাত চলচ্চিত্র অ্যাভাটার থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে ১২ একরের এই থিম পার্কটি তৈরি করা হয়। এখানে মুভির মতোই রয়েছে ভাসমান পর্বত, ভীনগ্রহের কৃত্রিম প্রাণী, রং বেরঙের গাছপালা ইত্যাদি।

এব ফিলহারমনিক হল (জার্মানি)

জার্মানির হ্যামবুর্গে এব নদীর মাঝে একটি দ্বীপে অবস্থিত এই কনসার্ট হলটির প্রচলিত নাম এলফি। ইটের তৈরি পুরনো একটি ওয়্যারহাউজের উপর নির্মিত কনসার্ট হলটি কাঁচের তৈরি। পাল তোলা নৌকার মতো দেখতে এই হলটি শুধু এর নির্মাণকৌশলের জন্যই নয়, বরং এর অত্যাধুনিক সাউন্ড সিস্টেম ও লাইটিং-এর জন্যই বিখ্যাত।

মিউজিয়াম মাকান (ইন্দোনেশিয়া)

এর পুরো নাম দ্য মিউজিয়াম অব মডার্ন এন্ড কনটেম্পোরারি আর্ট ইন নসানত্রা। ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তার নসানত্রায় প্রায় ৪ হাজার বর্গমিটার জায়গা জুড়ে নির্মিত এই জাদুঘরটি আকর্ষণীয় সব চিত্রকল্প ও শিল্পের অদ্বিতীয় সংগ্রহশালা। ২০১৭ সালের নভেম্বরে সব বয়সী দর্শনার্থীদের জন্য এই জাদুঘরটি উন্মুক্ত করা হয়।

সিউলো ৭০১৭ স্কাইগার্ডেন (দক্ষিণ কোরিয়া)

দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলোর একটি বন্ধ হয়ে যাওয়া হাইওয়ে ওভারপাসের উপর নির্মাণ করা হয়েছে এই সিউলো স্কাইগার্ডেন পার্কটি। প্রায় এক কিলোমিটার দীর্ঘ পায়ে চলার উপযোগী পথটিতে বিভিন্ন ক্যাফে, ফুড কর্ণার বাদেও রয়েছে প্রায় ২৪ হাজার গাছপালার এক সরলরৈখিক বাগান। ২০১৭ সালে নির্মিত হওয়া এই পার্কটির রাতের দৃশ্য পর্যটকদের বেশি আকৃষ্ট করে।

সেন্ট্রাল আইডাহো ডার্ক স্কাই রিজার্ভ (যুক্তরাষ্ট্র)

সারা বিশ্বে মাত্র ১২টি স্থান রয়েছে যেগুলোকে ইন্টারন্যাশনাল ডার্ক স্কাই এসোসিয়েশন কর্তৃপক্ষ ডার্ক স্কাই রিজার্ভ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। এই স্থানগুলোর বিশেষত্ব হলো, এর পরিষ্কার বায়ুমণ্ডলের কারণে খালি চোখে রাতের আকাশের সবচেয়ে বেশি তারা দেখতে পাওয়া যায়। ২০১৭ সালে এই তালিকার সর্বশেষ যুক্ত হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সেন্ট্রাল আইডাহোর ২ হাজার ২৫০ বর্গকিলোমিটারের এই এলাকা। এটি যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থিত একমাত্র ডার্ক স্কাই রিজার্ভ।

এই বিভাগের আরো খবর