• বৃহস্পতিবার   ২৮ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৪ ১৪২৭

  • || ০৫ শাওয়াল ১৪৪১

পিরোজপুর সংবাদ
২৯

২৯ ফেব্রুয়ারিতে বিয়ে করলেই দুর্ভাগ্য! রইল আরো মজার তথ্য

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

 

আজ ২৯ ফেব্রুয়ারি, এ দিনটিকে বলা হয় লিপ ইয়ার। এদিন যাদের জন্মদিন তারা আবার ২০২৪ সালে গিয়ে জন্মদিন পালন করতে পারবেন। আর আজ যারা জন্মগ্রহণ করল তারা তো একেবারে চতুর্থ জন্মদিন পালন করবে।   

অধিবর্ষ বা লিপ ইয়ার হচ্ছে একটি বিশেষ বছর। যা সাধারণ বছরের তুলনায় একটি দিন বেশি হয় অর্থাৎ ৩৬৫ দিনের জায়গায় ৩৬৬ দিন হয়। প্রতি চার বছর পরপর লিপ ইয়ার হয়। সূর্যের চারদিকে পৃথিবীর প্রদক্ষিণের সত্যিকারের সময়ের সঙ্গে ক্যালেন্ডারের হিসাবের মিল বজায় রাখার জন্যই লিপ ইয়ারের আর্বিভাব। 

হিসেব অনুযায়ী ২০১৬ সালের পর লিপ ইয়ার পড়েছে এই বছর অর্থাৎ ২০২০ সালে। আর পরের লিপ ইয়ার পড়বে ২০২৪ সালে। ৪ বছর পরপর ক্যালেন্ডারে আরো একটি দিন সংযোজন বছরটিকে বিশেষ করে তোলে। লিপ ইয়ার নিয়ে বিভিন্ন ঐতিহ্যের বিভিন্ন বিশ্বাস রয়েছে। লিপ ইয়ার কি তা তো জানেন? তবে লিপ ইয়ার নিয়ে রয়েছে নানা ইতিহাস, ঐতিহ্য আর নানা অদ্ভুত কর্মকাণ্ড। চলুন আজ লিপ ইয়ারের কিছু মজার তথ্য জানাবো- 

ফেব্রুয়ারিতেই কেন লিপ ইয়ার?    

সাধারণত সূর্যের চারদিকে পৃথিবীর প্রদক্ষিণের সত্যিকারের সময়ের সঙ্গে ক্যালেন্ডারের হিসাবের মিল রাখার জন্যই লিপ ইয়ারের আর্বিভাব। আচ্ছা কখনো কি আপনার মনে হয়েছে, অন্য কোনো মাসে কেন লিপ ইয়ার হয় না? কেনই বা ফেব্রুয়ারি মাসকে একদিন বাড়িয়ে ২৯ দিন বানানো হয়? 

পৃথিবী সূর্যের চার পাশে ঘুরতে সময় লাগে প্রায় ৩৬৫ দিন ৫ ঘন্টা ৪৮ মিনিট ৪৭ সেকেন্ড। তবে আমরা যদি ৩৬৫ দিনে বছর ধরি তাহলে চার বছর পর দেখা যাবে ২৩ ঘণ্টা ১৫ মিনিট ৮ সেকেন্ড সময় কম হিসাব করা হয়েছে। এই সমস্যা দূর করার জন্য প্রতি চার বছর পর পর ফেব্রুয়ারি মাসে এক দিন বাড়িয়ে ২৯ দিন করা হয়েছে। আর সেই বছরকেই লিপ ইয়ার বলা হচ্ছে। 

ছোটবেলায় নিশ্চয় শিখেছেন, চার দিয়ে কোনো বছরকে যদি ভাগ করা যায় তবে সেটা লিপ ইয়ার বছর। হ্যাঁ, এই তথ্য একেবারে সঠিক। চার বা ৪০০ দিয়ে কোনো বছরকে যদি ভাগ করা যায় সেটিকে লিপ ইয়ার বছর হিসাবে ধরা হবে। তবে দু’টো শূন্য দিয়ে কোনো বছর শেষ হলেই তা লিপ ইয়ার হবে এর কোনো অর্থ নেই। তবে যদি সেটা চার দিয়ে  ভাগ করা যায় তবেই তা লিপ ইয়ার হবে।  

এবার তবে জেনে নিন লিপ ইয়ার সম্পর্কিত মজার কিছু তথ্য- 

> একটি লিপ ইয়ারে সাধারণ বছরে ৩৬৫ দিন থাকে না, ৩৬৬ দিন থাকে।  

> ক্যালেন্ডারে লিপ ইয়ার যুক্ত করার ধারণাটি মিশরীয়রা চালু করেছিল। হাজার হাজার বছর আগে জুলিয়াস সিজার আনুষ্ঠানিকভাবে ২৯ ফেব্রুয়ারি তারিখটি রোমান ক্যালেন্ডারে যুক্ত করেছিলেন।

> যারা লিপ ডে’তে জন্মগ্রহণ করেন তারা চার বছরে একবার তাদের জন্মদিন উদযাপন করেন! বিশ্বে চার মিলিয়ন মানুষ ২৯ ফেব্রুয়ারি জন্মগ্রহণ করে। অনেক জায়গায় বিশ্বাস করা হয়, লিপ ইয়ারে জন্ম নেয়া বাচ্চাদের অস্বাভাবিক প্রতিভা থাকে।   
 
> লিপ ডে’তে অনেক দেশের মেয়েরাই তাদের পছন্দের পুরুষকে প্রেমের প্রস্তাব দেন।   

> এছাড়াও বিশ্বের অনেক দেশেই ২৯ ফেব্রুয়ারি দিনটিকে ব্যাচেলর ডে হিসেবে পালন করে। 

> আয়ারল্যান্ড ওফিনল্যান্ডের নারীরা এদিন প্রেমের প্রস্তাব দেয়। অন্যদিকে ফিনল্যান্ডে যদি কোনো পুরুষ প্রেমের প্রস্তাবটি প্রত্যাখ্যান করে তবে তাকে সেই নারীকে পোশাক কিনে দিতে হয়। 

> গ্রীসে প্রেমিক-প্রেমিকারা এদিন বিয়ে করেন না। তারা বিশ্বাস করেন যে, লিপ ইয়ারে বিয়ে করা তাদের বিবাহিত জীবনে দুর্ভাগ্য বয়ে নিয়ে আসবে।

> খ্রিষ্টানরা এ দিনটিকে ভোজ দিবস হিসেবে পালন করে থাকে।  
 
ইতিহাসের এই দিন

প্রতিটি দিন সাধারণ হলেও দিন শেষে নানা ঘটনা তাকে স্মরণীয় করে রাখে। এমন প্রতিদিনই ঘটে চলেছে বিভিন্ন ঘটনা। জানেন কি? লিপ ইয়ারের এই দিনেই ১৯১২ সালে টাইটানিক ডুবে গিয়েছিল। রোমানরাই প্রথম ২৯ ফেব্রুয়ারিকে লিপ দিন বলে অভিহিত করে। বেশ কিছু ঐতিহাসিক ঘটনা ঘটেছে লিপ ইয়ারের দিন। 

যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে ১৯৭২ সালের লিপ ইয়ারে বিদ্যুত আবিষ্কার করেছিলেন বেনজামিন ফ্রাঙ্কলিন। ১৯৬৭ সাল থেকে ২৯ শে ফেব্রুয়ারি সুপারম্যানের আনুষ্ঠানিক জন্মদিন পালন করা হয়। এছাড়াও লিপ ইয়ারের এ দিনে অনেক বিখ্যাত মানুষ জন্মগ্রহণ করেছেন। আবার অনেকেই আজকের এদিনে চলে গেছেন না ফেরার দেশে।  

লাইফস্টাইল বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর