• শুক্রবার   ২৭ জানুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ১৩ ১৪২৯

  • || ০৩ রজব ১৪৪৪

পিরোজপুর সংবাদ

মঠবাড়িয়ার ৪ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিশুদের জন্য পাঠাগার

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ২৬ নভেম্বর ২০২২  

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশুদেও পাঠ্য বইয়ের আনন্দ দেয়ার পাশাপশি বাড়তি জানা ও আনন্দ দেয়ার পাশাপশি ৪ টি বিদ্যালয়ে পাঠাগার স্থাপণ করা হয়েছে। এগ্রলো হলো মঠবাড়িয়া পৌর শহরের ৫৬ নং মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৫৯ নং বকসির ঘটিচোরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এবং জেলে পল্লী উপজেলার বড় মাছুয়া ইউনিয়নের৭ নং খেজুর বাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ১৮১ নং উত্তর খেজুর বাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। জেলে পল্লীর শিশুদের জীবনমান উন্নয়নে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন “হাতে খড়ি ফাউন্ডেশন” এ পাঠাগার স্থাপণ করেন।

সরেজমিনে দেখা গেছে, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দেয়াল পেইন্টিং করা স্কুল ভিত্তিক এক একটি পাঠাগারে শোভা পেয়েছে শতাধিক বই। শিশুতোষ, সাধারণ জ্ঞান, ছোটদের গল্পের বই, ধর্মীয়, সাহিত্য ও বিজ্ঞান সম্মত এসব বই। বই পড়ার আনন্দে মেতেছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শত শত শিক্ষার্থীরা। স্কুল খোলার দিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত শিশুদের জন্য খোলা থাকছে এ পাঠাগার গুলো। শিশুরা বাড়িতে নিয়ে গিয়েও পড়তে পারবে বইগুলো।

জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে এ সকল বই সংগ্রহ করে আসছে “হাতে খড়ি ফাউন্ডেশন” সংগঠনের সদস্যরা। আর এসব বই সংগ্রহের পেছনে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন লেখক, কবি ও সাহিত্যানুরাগীরা।

৭ নং উত্তর খেজুর বাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জীবন অধিকারী বলেন, হাতে খড়ি ফাউন্ডেশনের এই উদ্যোগটি সত্যিই অনেক ভালো একটি উদ্যোগ। আমাদের বিদ্যালয়ে একটি পাঠাগার স্থাপন করায় আমি এবং আমাদের স্কুলের শিক্ষার্থী সহ সবাই খুব খুশি হয়েছি। তাদের এই পাঠাগারের মাধ্যমে আমাদের স্কুলের শিশুরা আরো অনেক কিছু শিখতে পারবে। ৫ম শ্রেণীর ছাত্রী দোলা হালদার বলে, এখান থেকে আমরা ছড়া ও গল্পের বই নিতে পারবো।

“হাতে খড়ি ফাউন্ডেশন” এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান রুবেল মিয়া বলেন, শিশুরা পাঠ্য বই পড়ার পাশাপশি পাঠাগারের বই পড়ে জানতে পারবেঅনেক কিছু।  শিক্ষার্থীদের নতুন করে জ্ঞানের ভান্ডার বৃদ্ধির জন্য সংগঠনের পক্ষেথেকে এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আমারা আরো ভালো বই সংগ্রহের চেষ্টা করছি।

মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার পাঠাগার উদ্বোধক ডাঃ ফেরদৌস ইসলাম বলেন হাতে খড়ি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগগুলো প্রশংসনীয়। তাদের মাধ্যমে উপকৃত হয়েছে জেলে পল্লীর অনেক শিশু ও পরিবার। তাদের এই স্কুলভিত্তিক উপকূল পাঠাগার উদ্যোগটি আমার ভালো লেগেছে।