• শুক্রবার   ১৯ আগস্ট ২০২২ ||

  • ভাদ্র ৪ ১৪২৯

  • || ২০ মুহররম ১৪৪৪

পিরোজপুর সংবাদ
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন জাতিসংঘ মানবাধিকার প্রধান বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর আ. লীগের নেতারা কী করেছিলেন: প্রধানমন্ত্রী সুশীল বাবু মইনুল খুনিদের নিয়ে দল গঠন করে: প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু হত্যায় জড়িতরা আজ মানবাধিকারের কথা বলে: প্রধানমন্ত্রী ভারত পারলে আমরাও রাশিয়া থেকে তেল কিনতে পারবো: প্রধানমন্ত্রী চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডে হতাহতের ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর শোক ‘ষড়যন্ত্র প্রতিহত করে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচারের রায় কার্যকর করেছি’ খবরদার আন্দোলনকারীদের ডিস্টার্ব করবেন না: প্রধানমন্ত্রী জাতির পিতার মৃত্যু নেই প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে বঙ্গবন্ধু আমাদের রোল মডেল

বঙ্গবন্ধু হত্যা: মার্কিন সমর্থন চেয়েছিলো খুনিচক্র

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ৪ আগস্ট ২০২২  

মুজিব সরকার উৎখাত ও বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করতে মেজর ফারুক রহমান ও মেজর আবদুর রশিদের ষড়যন্ত্র ১৯৭২ সাল থেকেই চলছিল। মুজিব সরকারের অগোচরে কয়েকবার তারা মার্কিন দুতাবাসে গিয়ে অস্ত্র সংগ্রহের জন্য বৈঠক করে।  মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের দলিল থেকে জানা যায় এসব তথ্য।

বঙ্গবন্ধু হত্যার তিন দশক পর মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রকাশ করে বাংলাদেশ সম্পর্কিত নানা গোপন নথি।  

নথির ৩১৫৬ নং সিক্রেট ডকুমেন্টে বলা হয়, ১৯৭২ সালে মুজিব সরকারের অগোচরে মেজর সৈয়দ ফারুক রহমান ঢাকার মার্কিন দূতাবাসে গিয়েছিলেন অস্ত্র সংগ্রহের ব্যাপারে আলোচনা করতে।

১৯৭৩ সালের ১১ জুলাই একইভাবে অস্ত্র সংগ্রহের জন্য মার্কিন দুতাবাসে যান মেজর ফারুকের ভায়রা মেজর আব্দর রশিদ। ব্রিগেডিয়ার জিয়াউর রহমানের নেতৃত্বে গঠিত একটি কমিটির পক্ষে সেনাবাহিনীর জন্য অস্ত্র ক্রয় নিয়ে কথা বলতে তাকে পাঠানো হয় বলে দাবি করেছিলেন তিনি।

রাষ্ট্রদূত ডেভিদ ইউজিন বোস্টারের পাঠানো তারবার্তা ২১৫৮ নং সিক্রেট ডকুমেন্টে উঠে আসে আরও ভয়ানক তথ্য। 

১৯৭৪ সালের ১৩ মে ফারুক রহমান উচ্চতম পর্যায়ের বাংলাদেশ সেনা কর্মকর্তার নির্দেশে শেখ মুজিবুর রহমানের সরকার উৎখাতে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের সহায়তা চান।

এর ঠিক ১৫ মাসের ব্যবধানে ১৫ আগষ্টের নির্মমতা দেখে বিশ্ববাসী।