• মঙ্গলবার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ১২ ১৪২৯

  • || ২৯ সফর ১৪৪৪

পিরোজপুর সংবাদ

আজ ৭ আগস্ট, বিশ্ব বন্ধু দিবস

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ৭ আগস্ট ২০২২  

বন্ধু শব্দটির ব্যাপ্তি সীমাহীন; বয়স, কাল ও দেশ ছাড়িয়ে যে সম্পর্ক একান্ত হয়ে ওঠে। বন্ধুত্বের কোনও বয়সসীমা নেই। সমবয়সীরাও যেমন বন্ধু হতে পারে, তেমনি বয়সে ছোট-বড়রাও বন্ধু হতে পারে। বন্ধুত্ব কেবল হাত বাড়িয়ে দেওয়া। কত বছর পেরিয়েও যাকে বলা যায়- ‘বন্ধু, কী খবর বল, কতদিন দেখা হয়নি।'

আজ ৭ আগস্ট, বিশ্ব বন্ধু দিবস। যে সম্পর্কের ব্যপ্তি সীমাহীন তাকে কোনও নির্দিষ্ট দিনক্ষণে বাঁধা যায়? তারপরও কোনও একটি উপলক্ষে প্রিয় মানুষদের সান্নিধ্যে গেলে, কিংবা সম্পর্কটাকে আরেকটু ঝালিয়ে নিলেই বা ক্ষতি কিসে।

বন্ধু দিবসের পরিকল্পনা ও উৎপত্তি হয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানে ১৯১৯ সালে সর্বপ্রথম আগস্ট মাসের প্রথম রবিবার ‘বন্ধু দিবস’ হিসেবে পালন করা হয়েছিল।

তবে ঠিক কবে থেকে বন্ধুদিবস পালন করা হচ্ছে তার সঠিক ইতিহাস নিশ্চিতভাবে বলা সম্ভব নয়। তবে বেশ কিছু ইতিহাসদেখে ধারণা করা যায় ঊনবিংশ শতাব্দির ত্রিশ থেকে চল্লিশের দশকের মধ্যবর্তী সময়েই বন্ধুদিবস পালন শুরু হয়। দক্ষিণ আমেরিকার কিছু দেশ বিশেষত প্যারাগুয়ে’তে প্রথম বন্ধুদিবস পালন শুরু হয়। সালটা ছিল ১৯৫৮। প্রথম দিকে বিভিন্ন গিফট কার্ড তৈরিকারী প্রতিষ্ঠান ফ্রেন্ডশিপ ডে’র চল শুরু করে। পরবর্তী সময়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধির সঙ্গে এই দিন উদযাপন বিশাল আকার ধারণ করে।

তবে দিবস পালন নিয়ে অন্য আরেকটি মত হল, ১৯৩৫ সালে যুক্তরাষ্ট্র সরকার এক ব্যক্তির মৃত্যুর কারণ হয়েছিল। এ ঘটনার প্রতিবাদে পরদিন ওই ব্যক্তির এক বন্ধু আত্মহত্যা করেন। সেই দিনটি ছিল আগস্ট মাসের প্রথম রোববার। তখন থেকেই তার আত্মত্যাগের প্রতি সম্মান জানাতে মার্কিন কংগ্রেস ১৯৩৫ সালের আগস্ট মাসের প্রথম রোববারকে ‘বন্ধু দিবস’ হিসেবে পালনের সিদ্ধান্ত নেয়।

একসময় এইদিনে বন্ধুদের কার্ড, চকলেট বিনিময় হতো। এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্মৃতি শেয়ার করে, বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডার ছবি আপলোড করে দিনটি স্মরণ করা হয়ে থাকে। মনোবিশ্লেষকরা বলেন, ‘বন্ধুত্ব’ ব্যাপারটা সব সম্পর্কের ক্ষেত্রেই প্রয়োজন। সন্তানের সঙ্গে অভিভাবকের, বিবাহিত সম্পর্কে বন্ধুত্ব তৈরি হলে তা সম্পর্ককে সহজ করে।

সেই বন্ধুত্ব কি বলে-কয়ে হয়? ভাবনায় মিল হলে মানুষ বন্ধু হয়ে ওঠে। এবং সে সম্পর্ক অন্য মাত্রা পায়। মনের সঙ্গে মনের মিল হলেই শুধু সত্যিকারের বন্ধুত্ব হয়। বন্ধুত্বে অহংকার ও হিংসার স্থান নেই, কোনও হিসাব নেই। ‘বন্ধুত্ব’ এমন একটা বিষয়, যা অনেক ক্ষেত্রে জীবনের চেয়েও দামি হয়ে দাঁড়ায়।

আধুনিক সমাজে মানুষ জীবনের বাস্তবতার দৌড়ে ধীরে ধীরে বিচ্ছিন্ন হতে থাকে। মনোরোগ বিশেষজ্ঞ তাজুল ইসলাম বলেন, ভালো বন্ধুত্ব এই বিচ্ছিন্নতা বোধ থেকে মানুষকে মুক্তি দেয়। তিনি বলেন, বন্ধুহীন মানুষ নানা মানসিক সমস্যায় ভোগে। আমাদের জীবনে এমন মানুষ দরকার যে আমার সমস্যাকে তার সমস্যা হিসেবে দেখতে শিখবে। যার কাছে কিছু লুকোতে হয় না। এমন বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক থাকলে মানুষ নিজেকে একা মনে করে না ওবং যেকোনো মানসিক সমস্যা থেকে বেরিয়ে আসতে পারে।