• শুক্রবার   ০৯ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২৫ ১৪২৯

  • || ১৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

পিরোজপুর সংবাদ

কড়া নাড়ছে দুর্গাপূজা, শেষ সময়ে তুলির রঙে রঙিন হচ্ছে প্রতিমা

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২  

দরজায় কড়া নাড়ছে শারদীয় দুর্গাপূজা। সনাতন ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় এ উৎসবকে ঘিরে চলছে শেষ সময়ে প্রতিমা তৈরির কাজ। ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা শিল্পীরা। মাটি দিয়ে প্রতিমার আকৃতি বানানো শেষ। মনের মাধুরী মিশিয়ে দেব-দেবীকে সাজাচ্ছেন প্রতিমা কারিগররা। বাহারি রঙ আর হাতের সুনিপুণ ছোঁয়ায় প্রাণবন্ত হয়ে উঠেছে প্রতিমা। আগামী রোববার মহালয়া, চণ্ডীপাঠের মাধ্যমে মর্ত্যলোকে আমন্ত্রণ জানানো হবে দেবী দুর্গাকে। ২ অক্টোবর থেকে শুরু হবে সনাতন ধর্মবলম্বীদের সবচেয়ে বড় এ উৎসব।

শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সরেজমিনে দেখা যায়— পুরান ঢাকার বাংলাবাজারের জমিদারে বাড়ি, শাঁখারীবাজার, লক্ষ্মীবাজার, সূত্রাপুরে চলছে রাত-দিন প্রতিমা তৈরির কাজ। মাটি দিয়ে প্রতিমার আকৃতি দেওয়া হয়েছে ২ মাস আগেই। রোদে শুকিয়ে সেগুলোকে রঙ-তুলিরপ্রলেপ দিচ্ছেন প্রতিমা কারিগর ও সহযোগীরা। একই সঙ্গে চলছে সাজ-সজ্জার কাজও। দুর্গাপূজার পরপরই শুরু হয় সরস্বতী ও কালীপূজা। তাই তো দেবিদুর্গা সঙ্গে সাজিয়ে তোলা হচ্ছে লক্ষ্মী, সরস্বতী, কার্তিক, গণেশকেও।

বাংলাবাজার জমিদার বাড়িতে চলছে রাত-দিন প্রতিমা তৈরির কাজ। দুর্গাপূজার ১২টি মণ্ডপের প্রতিমা তৈরি হচ্ছে এখানে। দেবীদুর্গাকে সাজাচ্ছেন বিখ্যাত মৃৎশিল্পী বলাই পাল।

তিনি বলেন, এ বছর দুর্গাপূজায় ১২ টি মণ্ডপের অর্ডার পেয়েছি। চার মাস আগেই অর্ডার দিতে হয়। দিন-রাত পরিশ্রম করে শেষ সময়ের কাজ চলছে। আমরা পূর্বপুরুষেরা এ পেশায় জড়িত ছিলেন। এটা শুধু আমাদের পেশা নয়। কাজের মধ্যে আমাদের প্রেম ও ভক্তি কাজ করে। এ কাজে প্রবল আগ্রহ না থাকলে করা সম্ভব নয়। তবে, এ প্রজন্ম সময় পরিশ্রম বেশি ও সে অনুযায়ী পারিশ্রমিক না পাওয়াতে এ শিল্পে অনেকেই আসতে চায় না।

তিনি আরও বলেন, বর্তমান মাটি, রঙ, বাঁশের দাম বেড়ে গেছে। আগে দুর্গাপূজার এক সেট প্রতিমা তৈরি করতে ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা খরচ হতো। এখন তা বেড়ে ৬০ হাজার টাকার বেশি হয়ে গেছে। পরিশ্রম অনুযায়ী আমাদের পারিশ্রমিক মিলে না।

একইভাবে শাঁখারীবাজারের বিভিন্ন মন্দিরে চলছে প্রতিমা তৈরির কাজ। শাঁখারীবাজারের শিমুলিয়া শিল্পালয়ের প্রতিমা শিল্পীপল্টন পাল জাগো নিউজকে বলেন, করোনার প্রভাব নেই। গত দুই বছর থেকে কাজের চাপ বেশি। ব্যস্ত সময় যাচ্ছে। মহালয়ার পরপর অর্ডার বুঝিয়ে দিতে হবে। জিনিসপত্রের দাম প্রতিমা তৈরির ব্যয় বেড়েছে।

জানা যায়, এবার ঢাকা মহানগরের ২৪১ টি মন্দিরে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে। এরমধ্যে ঢাকা মহানগর দক্ষিণে ১৫৪ টি ও উত্তরে ৮৭টি। সবচেয়ে বেশি পূজা উদযাপন হবে পুরান ঢাকার শাঁখারীবাজার ও সূত্রাপুর এলাকায়।

কোতোয়ালি থানা ও শাঁখারীবাজার পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি জ্যোতির্ময় বিশ্বাস বলেন, শাঁখারীবাজারে এ বছর ১১ টি মণ্ডপে পূজার আয়োজন হচ্ছে। প্রতিমা তৈরিও শেষ পর্যায়ে। কিছু জায়গায় মঞ্চ নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। এখন যেহুতু করোনার প্রভাব নেই, এ বছর সবাই ভালোভাবে পূজা উদযাপন করতে পারবেন।