• মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ১৩ ১৪৩০

  • || ১৫ শা'বান ১৪৪৫

পিরোজপুর সংবাদ
ব্রেকিং:
জনগণের আস্থা অর্জন করলে ভোট পাবেন: জনপ্রতিনিধিদের প্রধানমন্ত্রী জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে উন্নয়ন কাজের ব্যবস্থাটা আমরা নিয়েছিলাম কেউ যেন ভুয়া ক্লিনিক-চিকিৎসকের দ্বারা প্রতারিত না হন: রাষ্ট্রপতি স্থানীয় সরকার বিভাগে বাজেট বরাদ্দ ৬ গুণ বেড়েছে: প্রধানমন্ত্রী স্থানীয় সরকারকে মাটি-মানুষের সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক গড়তে হবে শবে বরাতের মাহাত্ম্যে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশের কাজে আত্মনিয়োগের আহ্বান সমাজের অসহায়, দরিদ্র মানুষের সহায়তায় এগিয়ে আসতে হবে দেশের মানুষের জন্য ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে হবে বিচারকদের ক্ষমতার অপব্যবহার রোধকল্পে খেয়াল রাখার আহ্বান মিউনিখ সফরে বাংলাদেশের অঙ্গীকার বলিষ্ঠরূপে প্রতিফলিত হয়েছে

ঘুম থেকে ওঠার পর থেকেই শরীর দুর্বল লাগে কেন?

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ১২ নভেম্বর ২০২৩  

সকালটা সুন্দর হবে এটাই স্বাভাবিক। ঘুম হচ্ছে পর্যাপ্ত তবু যেন দুর্বলতা পিছু ছাড়ছে না। কেন এমন হচ্ছে? মনে প্রশ্ন জাগে যারা এই সমস্যায় ভুগছেন। হয়তো কেউ আবার পাত্তাই দিচ্ছেন না। তবে কিছু কারণতো রয়েছেই।
সারাদিন দুর্বল লাগার কারণগুলো জেনে নেয়া যাক-
 
১. কম ঘুম: আপনার মনে হচ্ছে ঘুমালেন ঠিকঠাক। তবু একটা ক্লান্তিকর আমেজ শরীর থেকে যাচ্ছে না। এটাকে কেন্দ্র করে সারাদিন খুব দুর্বল লাগছে। তাহলে বুঝতে হবে আপনার ঘুম পর্যাপ্ত হয়নি। কোন কারণে ঘুমের ব্যাঘাত ঘটেছে। পর্যাপ্ত ঘুম না হলে আপনি স্লিপ ইনারশিয়ায় ভুগতে পারেন। তাই ঘুমের জন্য পর্যাপ্ত সময় দিন। রোজ ৭ থেকে ৮ ঘন্টা ঘুম দরকার। তবে পুরোপুরি ৮ ঘন্টা ঘুমালে ভাল।
২. রোগ-ব্যধি: সকালবেলা ক্লান্তির সমস্যার পেছনে অনেক গুরুতর অসুখও দায়ী হতে পারে। এর নেপথ্য কারণ হতে পারে অ্যানিমিয়া, অ্যাংজাইটি, ক্রনিক ফ্যাটিগ সিনড্রোম, অবসাদ, ডায়াবিটিস, থাইরয়েড ইত্যাদি। তাই ঘুমিয়ে উঠেও ক্লান্ত লাগলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ফেলুন। তিনিই সমস্যা সমাধানের সঠিক পথ দেখাবেন।
৩. জীবন যাপন: আপনি যদি সারা দিন শুয়ে বসে থাকেন তবে শরীর ঝিম ধরে থাকবে। মনে হবে আপনি প্রচুর ক্লান্ত। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছেন, প্রাপ্তবয়স্কদের সপ্তাহে কমপক্ষে ১৫০ মিনিট বা আড়াই ঘন্টা মাঝারি শারীরিক ব্যায়াম করা উচিত।
৪. বিষন্নতা: বিষন্নতার কারণে আপনার ঘুমের সমস্যা হতে পারে। এমন হতে পারে, আপনি ঘুম থেকে বারবার জেগে উঠছেন। স্লিপ ইনারশিয়ার এটাও একটি কারণ। বিষন্নতায় ভুগলে ডাক্তারের পরামর্শ নিন। ডাক্তারের পরামর্শে ঔষধ খেতে পারেন।
৫. পানিশূন্যতা: শরীরে পানিশূন্যতা হলে শরীর দুর্বল হয়ে যায়। এর ফলে আপনার ঠিকঠাক ঘুম হবে না। শরীর যেন পানিশূন্য না হয়ে পড়ে তাই বেশি বেশি পানি পান করুন।
৬. ঘুমের উপযোগী পরিবেশ: পর্যাপ্ত ঘুম না হওয়ার কারণ হলো পরিবেশ। ঘুমের পরিবেশ না থাকলে ঘুম কোনো ভাবেই হবে না। তাই ঘুমানোর আগে ঘুমের পরিবেশ তৈরি করুন। ঘুমানোর আগে ঘরের বাতি নিভিয়ে দিন। রাতে ক্যাফেইন জাতীয় পানীয় পান করা থেকে বিরত থাকুন।
৭. পুষ্টিকর খাবার: শরীরে পুষ্টি গুণের অভাব থাকলে সামান্য পরিশ্রমেই শরীর ক্লান্ত হয়ে পড়ে। পুষ্টিকর ও শক্তি সঞ্চয়কারী খাবার যেমন ডিম, কলা, দুধ, ফল, বাদাম, মাছ, মাংস, শাক-সবজি খেলে শরীরের পুষ্টির চাহিদা মিটবে, শক্তি মিলবে এবং দিনভর ক্লান্তিভাব দূর হবে।
৮. শরীরচর্চা: সকালে ঘুম থেকে উঠে কমপক্ষে এক ঘণ্টা যন্ত্র ছাড়া হালকা এক্সারসাইজ করলে অলসতা দূর হওয়ার পাশাপাশি শরীর সুস্থ ও সবল থাকবে। আধঘণ্টার হাঁটা শরীর ফুরফুরে রাখে এবং নতুন করে শক্তি অনুভব করবেন যা ক্লান্তি দূর করার প্রধান উপায় হতে পারে।