• মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ১ ১৪৩১

  • || ০৮ মুহররম ১৪৪৬

পিরোজপুর সংবাদ

গাজা যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়লে তার দায় যুক্তরাষ্ট্রকে নিতে হবে: ইরান

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ১৯ নভেম্বর ২০২৩  

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকার ওপর ইহুদিবাদী ইসরায়েলের চলমান গণহত্যাকারী যুদ্ধের বিস্তার ঘটুক ইরান তা চায় না, কিন্তু ওয়াশিংটন ও তেল আবিব যে আচরণ করছে তাতে এ যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়ার সমূহ আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।
হোসেইন আমির-আব্দুল্লাহিয়ান সম্প্রতি সুইজারল্যান্ডের জেনেভা সফরকালে ফিনান্সিয়াল টাইমসকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এ সতর্কবাণী উচ্চারণ করেছেন।

গত ৭ অক্টোবর থেকে গাজায় ইসরাইলের নির্বিচার বিমান হামলায় এ পর্যন্ত অন্তত ১২,৩০০ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে যাদের মধ্যে শুধু শিশু রয়েছে পাঁচ হাজারের বেশি। আহত হয়েছেন আরো ২৯,৮০০ জন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র যুদ্ধের শুরু থেকে এ পর্যন্ত হাজার হাজার যুদ্ধাস্ত্র ও সামরিক যান দিয়ে ইসরায়েলকে সহায়তা করেছে।

গাজায় ইসরায়েলি আগ্রাসনের বিরুদ্ধে বিশ্বব্যাপী লাখ লাখ মানুষের প্রতিবাদ সত্ত্বেও তেল আবিব কিংবা ওয়াশিংটন যুদ্ধবিরতির আহ্বান মেনে নিচ্ছে না।  মার্কিন সরকার গাজার ওপর ইসরায়েলের ভয়াবহ আগ্রাসনকে ‘আত্মরক্ষার অধিকার’ বলে চালিয়ে দিচ্ছে। এছাড়া, গাজায় যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানিয়ে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে তোলা একাধিক প্রস্তাবে ভেটো দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

সাক্ষাৎকারে ইরানের শীর্ষ কূটনীতিক বলেন, গাজা যুদ্ধ শুরুর প্রথম সপ্তাহগুলোতে ওয়াশিংটন তৃতীয় চ্যানেলের মাধ্যম তেহরানকে এই বার্তা দিতে শুরু করে যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র গাজা যুদ্ধের বিস্তৃতি চায় না। ওইসব বার্তায় ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ সংগঠনগুলোর প্রতি নৈতিক সমর্থন দানকারী ইরানকে আত্মসংবরণ করার আহ্বান জানানো হয়।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ওয়াশিংটনের বার্তার জবাবে আমরা বলেছি, আমরাও গাজা যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়ুক তা চাই না। কিন্তু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইহুদিবাদী ইসরায়েল যেভাবে গাজাবাসীর বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধ করে যাচ্ছে তাতে যেকোনো সময় যেকোনো কিছু ঘটে যেতে পারে এবং যুদ্ধ গোটা অঞ্চলে অবশ্যম্ভাবী রূপে ছড়িয়ে পড়তে পারে। আমির-আব্দুল্লাহিয়ান জানান, মার্কিন সরকার লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহকেও ধৈর্য ধরার আহ্বান জানিয়ে চিঠি দিয়েছে।

তিনি বলেন, ইরান ও হিজবুল্লাহকে নিরস্ত থাকার আহ্বান জানিয়ে তেল আবিবের প্রতি সর্বাত্মক সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। এ থেকে বোঝা যায়, যুদ্ধকে নিয়ন্ত্রণে রাখার যে দাবি ওয়াশিংটন করছে তাতে সে সত্যনিষ্ঠ নয়। গাজা যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়লে তার দায় যুক্তরাষ্ট্রকে নিতে হবে বলে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।