• মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ১৩ ১৪৩০

  • || ১৫ শা'বান ১৪৪৫

পিরোজপুর সংবাদ
ব্রেকিং:
জনগণের আস্থা অর্জন করলে ভোট পাবেন: জনপ্রতিনিধিদের প্রধানমন্ত্রী জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে উন্নয়ন কাজের ব্যবস্থাটা আমরা নিয়েছিলাম কেউ যেন ভুয়া ক্লিনিক-চিকিৎসকের দ্বারা প্রতারিত না হন: রাষ্ট্রপতি স্থানীয় সরকার বিভাগে বাজেট বরাদ্দ ৬ গুণ বেড়েছে: প্রধানমন্ত্রী স্থানীয় সরকারকে মাটি-মানুষের সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক গড়তে হবে শবে বরাতের মাহাত্ম্যে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশের কাজে আত্মনিয়োগের আহ্বান সমাজের অসহায়, দরিদ্র মানুষের সহায়তায় এগিয়ে আসতে হবে দেশের মানুষের জন্য ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে হবে বিচারকদের ক্ষমতার অপব্যবহার রোধকল্পে খেয়াল রাখার আহ্বান মিউনিখ সফরে বাংলাদেশের অঙ্গীকার বলিষ্ঠরূপে প্রতিফলিত হয়েছে

শরীরের যেসব অংশে হাত দেওয়া ক্ষতিকর

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ২৬ নভেম্বর ২০২৩  

আমাদের শরীরের নানা অংশে সারাদিনে আমরা অনেকবার হাত দিয়ে স্পর্শ করি। কখনো প্রয়োজনে, কখনো অভ্যাসবশত এমনটা করা হয়। হঠাৎ আপনার পিঠ চুলকাতে শুরু করলে সেখানে স্পর্শ করতেই হবে। কিন্তু অনেক সময় কেবল অভ্যাসের কারণে এমন অনেক স্থানে স্পর্শ করি যা ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সুস্থ থাকতে চাইলে শরীরের সেসব অংশ স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকতে হবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক, শরীরের কোন অংশগুলোতে হাত দেওয়া ক্ষতিকর-


১. চোখ

অনেকেরই হাত দিয়ে চোখ ঘষাঘষি করার অভ্যাস রয়েছে। এটি ক্ষতিকর। এমন অভ্যাস থাকলে আজই বাদ দিন। চোখ চুলকানো বা পরিষ্কারের জন্য চোখে সরাসরি হাত দেবেন না। এর ফলে হাতে থাকা জীবাণু চোখের ভেতর ছড়াতে পারে। চোখ ধোওয়ার সময় পানির ঝাপটা দিন চোখে। সরাসরি হাত দিয়ে ধোবেন না।


২. মুখ


অনেকেই আমরা দিনের মধ্যে অনেকবার মুখ স্পর্শ করি। খুব বেশি প্রয়োজন ছাড়া মুখ থেকে হাত দূরে রাখুন। কারণ হাত দিয়ে আমরা সারাদিন অনেক কিছু ধরে থাকি। ফলে হাতে বিভিন্ন ধরনের জীবাণু হাতে লেগে থাকে। সেই হাত মুখে দিলে জীবাণু ছড়ানোর ভয় থাকে।  যে কারণে হতে পারে ব্রণসহ ত্বকের নানা সমস্যা।

গবেষণায় দেখা গেছে, আমাদের শরীর যেসব জীবাণুর দ্বারা আক্রান্ত হয় তার এক তৃতীয়াংশ প্রবেশ করে মুখের মাধ্যমে। তাই প্রয়োজন ছাড়া ঠোঁট কিংবা মুখের ভেতরের অংশ হাত দেওয়া থেকে বিরত থাকুন। এভাবে অভ্যাস করতে পারলে বিভিন্ন ধরনের অসুখ-বিসুখ থেকে বাঁচা সহজ হবে।

৪. কানের ছিদ্র

কান খোঁচাখুঁচির অভ্যাস থাকলে তা আজই বাদ দিন। কানের ভেতরে কিছু প্রবেশ করানো উচিত নয়। কারণ কানের ভেতরের চামড়া বেশ পাতলা। তাই কানের ভেতরে কাঠি, আঙুল বা পেনসিল জাতীয় কিছু প্রবেশ করালে বিপদ ঘটতে পারে। বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দেন, কান চুলকালে সেই অস্বস্তিটুকু সহ্য করার।


৫. নাকের ভেতর

নাকের ভেতরে আঙুল দেওয়ার অভ্যাস আছে কি? এ ধরনের অভ্যাস থাকলে আজই তা বাদ দিন। এটি যেমন দৃষ্টিকটু তেমনই অস্বাস্থ্যকর। এ ধরনের অভ্যাসের ফলে হতে পারে স্টাফাইলোকোকাস অরিয়াস নামক ব্যাক্টেরিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার ভয়। সেখান থেকে দেখা দিতে পারে আরও অনেক সমস্যা।

৬. নখের ভেতর

হাতের নখ কিছুটা বড় হলে তার ভেতরে অন্য নখ দিয়ে খোটাখুটি করার অভ্যাস থাকে কারও কারও। এমনটা করবেন না। নখ পরিষ্কার করার কাজে নরম ব্রাশ ব্যবহার করতে হবে। নখ দিয়ে নখ পরিষ্কার করলে এর ভেতরে থাকা জীবাণু এবং মৃত কোষ শরীরের অন্য অংশে প্রবেশের সুযোগ পায়। যা হতে পারে ক্ষতির কারণ।