• শুক্রবার   ১৯ আগস্ট ২০২২ ||

  • ভাদ্র ৪ ১৪২৯

  • || ২০ মুহররম ১৪৪৪

পিরোজপুর সংবাদ
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন জাতিসংঘ মানবাধিকার প্রধান বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর আ. লীগের নেতারা কী করেছিলেন: প্রধানমন্ত্রী সুশীল বাবু মইনুল খুনিদের নিয়ে দল গঠন করে: প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু হত্যায় জড়িতরা আজ মানবাধিকারের কথা বলে: প্রধানমন্ত্রী ভারত পারলে আমরাও রাশিয়া থেকে তেল কিনতে পারবো: প্রধানমন্ত্রী চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডে হতাহতের ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর শোক ‘ষড়যন্ত্র প্রতিহত করে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচারের রায় কার্যকর করেছি’ খবরদার আন্দোলনকারীদের ডিস্টার্ব করবেন না: প্রধানমন্ত্রী জাতির পিতার মৃত্যু নেই প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে বঙ্গবন্ধু আমাদের রোল মডেল

মঠবাড়িয়ায় স্কুলছাত্রী ও বিধবা নারীকে ধর্ষনের মামলার ২ আসামী গ্রেপ্তার

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ২৩ জুলাই ২০২২  

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি :

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় পৃথক দুটি ধর্ষন মামলায় মনির মল্লিক (৪৪) ও মোস্তফা ফৈইরাদী (৬০) নামে দুই আসামী গ্রেপ্তার করেছে মঠবাড়িয়া থানা পুলিশ। লম্পট মনির মল্লিক উপজেলার গুলিসাখালী গ্রামের মৃত. রুপাই মল্লিকের ছেলে ও মোস্তফা গোলবুনিয়া গ্রামের মৃত. আজিজ ফৈইরাদীর ছেলে।

মামলার বরাত দিয়ে মঠবাড়িয়া থানার ওসি মুহা. নূরুল ইসলাম বাদল জানান, বাগেরহাট জেলার নবম শ্রেনীতে পড়–য়া স্কুল ছাত্রীর মা-বাবার বিচ্ছেদের পর ওই ছাত্রীর মায়ের উপজেলার খেজুরবাড়িয়া গ্রামে দ্বিতীয় বিয়ে হয়। সেই সুবাদে ওই কিশোরী প্রায় সময়ই মায়ের কাছে বেড়াতে আসে। এদিকে ওই সৎ বাবার পূর্ব পরিচিত হিসেবে লম্পট মনির মল্লিক খেজুরবাড়িয়ার ওই বাড়িতে আসা-যাওয়া করতো এবং বিভিন্ন সময় কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দেয়ার পাশাপশি উত্যক্ত করতো। প্রায় এক মাস ধরে ওই কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভনে বিভিন্ন সময় ধর্ষন করে। ঘটনাটি জানাজানি হলে লম্পট মনির মল্লিক কিশোরীকে বিয়ে করতে অস্বীকার করে। এ ঘটনায় ওই কিশোরীর মা শুক্রবার (২২ জুলাই) মঠবাড়িয়া থানায় একটি মামলা করলে এস আই মিজানুর রহমান খেজুরবাড়িয়া গ্রামে থেকে লম্পট মনির মল্লিককে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারকৃত মনির মল্লিককে শনিবার (২৩ জুলাই) আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

অপর দিকে গত ১৮ জুলাই সোমবার রাতে গোলবুনিয়া গ্রামের মোস্তফা ফৈইরাদীর প্রতিবেশী ছোট ভাইয়ের বিধবা স্ত্রীর মোবাইলে তার সতীতেন মেয়ে কল দেয়। মা-মেয়র সাথে কথা বলাতে সে ঘরের দরজা খোলা রেখে মোবাইলটি নিয়ে সতীনের কাছে যায়। এ সুযোগে লম্পট মোস্তফা ফৈইরাদী ওই বিধবার ঘরে উঠে খাটের নিয়ে পালিয়ে থাকে। পরে ওই বিধবা নারী বাতি নিভিয়ে শুয়ে পরলে রাত সাড়ে ১১ টার দিকে মোস্তফা ফৈইরাদী প্রতিবেশী ছোট ভাইয়ের ওই বিধবা স্ত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষন করে। একপর্যায়ে সে চিৎকার করলে গ্রামবাসি ছুটে এসে ম্পটকে গণ ধোলাই দেয়। পরে তার স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য’ কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। এদিকে এ ঘটনায় ওই বিধবা নারী গত ২০ জুলাই বুধাবার মঠবাড়িয়া থানায় মামলা করেন।  লম্পট মোস্তফা হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যাবার চেষ্টা করলে মঠবাড়িয়া থানার এসআই সোহেল তাকে গ্রেপ্তার করে। বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) গ্রেপ্তারকৃত মোস্তফা ফৈইরদ কে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।