• শুক্রবার   ১৯ আগস্ট ২০২২ ||

  • ভাদ্র ৪ ১৪২৯

  • || ২০ মুহররম ১৪৪৪

পিরোজপুর সংবাদ
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন জাতিসংঘ মানবাধিকার প্রধান বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর আ. লীগের নেতারা কী করেছিলেন: প্রধানমন্ত্রী সুশীল বাবু মইনুল খুনিদের নিয়ে দল গঠন করে: প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু হত্যায় জড়িতরা আজ মানবাধিকারের কথা বলে: প্রধানমন্ত্রী ভারত পারলে আমরাও রাশিয়া থেকে তেল কিনতে পারবো: প্রধানমন্ত্রী চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডে হতাহতের ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর শোক ‘ষড়যন্ত্র প্রতিহত করে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচারের রায় কার্যকর করেছি’ খবরদার আন্দোলনকারীদের ডিস্টার্ব করবেন না: প্রধানমন্ত্রী জাতির পিতার মৃত্যু নেই প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে বঙ্গবন্ধু আমাদের রোল মডেল

মঠবাড়িয়ায় মুক্তিযোদ্ধাদের ৮৭টি “বীর নিবাস” নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ৪ আগস্ট ২০২২  

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি : মুজিব বর্ষে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় ৮৭ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা পাচ্ছেন “বীর নিবাস”। উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় প্রথম পর্যায়ের ১২ টি ও দ্বিতীয় পর্যায়ের ৭৫ টি “বীর নিবাস” নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বুধবার এসকল “বীর নিবাস” নির্মাণ কাজ পরিদর্শণ করেন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মিলন তালুকদার।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের উপ-সহকারি প্রকৌশলী শাহিন খান, উপজেলা সাবেক কমান্ডার মো. বাচ্চু আকন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. শাহাদাৎ হোসেন রাজা, ঠিকাদার মো. ফিরোজ আহম্মেদ মৃধাসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরের বিভিন্ন কর্মকর্তা-কর্মচারী বৃন্দ।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মিলন তালুকদার জানান, মুজিব বর্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানার্থে মঠবাড়িয়ায় ৮৭ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার জন্য “বীর নিবাস” উপহার দিচ্ছেন। প্রতিটি বীর নিবাসে ব্যায় ধরা হয়েছে ১৪ লাখ ২০ হাজার টাকা। প্রতিটি ভবনের আয়তন হবে ১৮৩ বর্গফুট। প্রতিটি বীর নিবাসে ২টি বেড রুম, ১টি ডাইনিং রুম, ১টি রান্নাঘর এবং ২টি বাথরুম রয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঊর্মি ভৌমিক বলেন, মুজিববর্ষে দেশের বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আধুনিক এই বীরত্বপূর্ণ বাড়ি উপহার দিচ্ছেন। নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায় রয়েছে। শীঘ্রই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে “বীর নিবাস” এর উদ্বোধন করবেন। পর্যায়ক্রমে তালিকাভুক্ত সকল বীর মুক্তিযোদ্ধাদের “বীর নিবাস” উপহার দেয়া হবে।