• মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৬ ১৪৩১

  • || ১২ জ্বিলকদ ১৪৪৫

পিরোজপুর সংবাদ
ব্রেকিং:
ইরানের প্রেসিডেন্টের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক সকল ক্ষেত্রে সঠিক পরিমাপ নিশ্চিত করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির ওজন ও পরিমাপ নিশ্চিতে কাজ করছে বিএসটিআই: প্রধানমন্ত্রী চাকরির পেছনে না ছুটে যুবকদের উদ্যোক্তা হওয়ার আহ্বান ‘সামান্য কেমিক্যালের পয়সা বাঁচাতে দেশের সর্বনাশ করবেন না’ যত ষড়যন্ত্র হোক, আ.লীগ সংবিধানের বাইরে যাবে না: ওবায়দুল কাদের শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আগামীকাল ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে বিচারকদের প্রতি আহ্বান রাষ্ট্রপতির আহতদের চিকিৎসায় আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর ভূমিকা চান প্রধানমন্ত্রী

মঠবাড়িয়ায় অবৈধ ইটভাটা মালিকের সাজা

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩  

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় উপজেলার উত্তর সোনাখালী গ্রামে স্কুল সংলগ্ন লোকালয় গড়ে তোলা ইটভাটা মালিক শাহ আলম গাজীতে ৩ মাসের কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। একই সাথে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ১ মাসের দন্ডাদেশ দেয়া হয়। বরিশাল পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক মোঃ আব্দুল হালিম এর নেতৃত্বে ২০ ফেব্রুয়ারী সোমবার বিকাল ৫ টায় এ অভিযান পরিচালিত হয়।

জানা গেছে, উপজেলার বাদুরতলী গ্রামের মৃত. সৈজদ্দিন গাজীর ছেলে প্রভাবশালী শাহ আলম গাজী উত্তর সোনাখালী গ্রামে লোকালয়ে ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সন্নিকটে গত বেশ কয়েক বছর ধরে কাঠ দিয়ে অবৈধ ইটভাটা (পাঁজা) পুড়িয়ে আসছিলো। এ ব্যপারে স্থানীয় বাসিন্ধা আঃ মালেক গাজীর ছেলে শাহ জালাল গাজী এলাকাবাসির অনুরোধে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দিয়েও কোন প্রতিকার পাচ্ছিলনা। তিনি বরিশাল বিভাগীয় পরিবেশ অধিদপ্তরে লিখিত অভিযোগ দিলে পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক মোঃ আবদুল হালিম সংশ্লিষ্ট প্রশাসককে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য চিঠি দেয়। অপর দিকে অবৈধ ইটভাটা (পাঁজা) বন্ধের দাবীতে মানবন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশও করেছিলো বিক্ষুব্দ এলাকাবাসি। এ ঘটনায় সম্প্রতি পিরোজপুর জেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এর নেতৃত্বে  প্রভাবশালী শাহ আলম গাজীর অবৈধ ইটভাটা সহ ৩টি ইটভাটায় পানি দিয়ে কাঁচা ইট গুলিয়ে দেয়া হয়েছে। এর পরেও পুণঃরায় একই এলাকায় অবৈধ ইটভাটা শুরু করেন প্রভাবশালী শাহ আলম গাজী। এ ঘটনায় নিরুপায় হয়ে শাহ জালাল গাজী উচ্চ আদালতে রিট করেন। রিটের প্রেক্ষিতে মাহামান্য আদালত সংশ্লিষ্ট দপ্তর গুলোকে অবৈধ ইটভাটা কেন বন্ধ হবেনা মর্মে জবাব চেয়েছেন। সে আলোকে পরিবেশ অধিদপ্তর ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন।

মঠবাড়িয়া উপজেল্ ানির্বাহী কর্মকর্তা ঊর্মি ভৌমিক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অবৈধ আট ভাটার বিরুদ্ধে পূর্বের একাধিক বার মোবাইল কোট করা হয়েছিলো। এবার উচ্চ আদালতের নির্দেশে পরিবেশ অধিদপ্তর ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন।