• বুধবার ২৪ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ৯ ১৪৩১

  • || ১৬ মুহররম ১৪৪৬

পিরোজপুর সংবাদ
ব্রেকিং:
তিন দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে ২১ জুলাই স্পেন যাবেন প্রধানমন্ত্রী আমার বিশ্বাস শিক্ষার্থীরা আদালতে ন্যায়বিচারই পাবে: প্রধানমন্ত্রী কোটা সংস্কার আন্দোলনে প্রাণহানি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা হবে মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেখাতে হবে : প্রধানমন্ত্রী পবিত্র আশুরা মুসলিম উম্মার জন্য তাৎপর্যময় ও শোকের দিন আশুরার মর্মবাণী ধারণ করে সমাজে সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার আহ্বান মুসলিম সম্প্রদায়ের উচিত গাজায় গণহত্যার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়া নিজেদের রাজাকার বলতে তাদের লজ্জাও করে না : প্রধানমন্ত্রী দুঃখ লাগছে, রোকেয়া হলের ছাত্রীরাও বলে তারা রাজাকার শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস আজ

হজ পালনকারী যেভাবে বিদায়ী তাওয়াফ করবেন

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ২০ জুন ২০২৪  

মক্কার বাইরে থেকে যারা হজ করতে মক্কায় যান, তাদের জন্য হজের সব কার্যক্রম শেষ করার পর মক্কা ছেড়ে চলে যাওয়ার আগে শেষ বারের মতো কাবা তাওয়াফ করা ওয়াজিব। এ তাওয়াফকেই বিদায়ী তাওয়াফ বলা হয়। আল্লাহর রাসুল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বলেছেন,

لَا يَنْفِرَنَّ أَحَدٌ حَتَّى يَكُونَ آخِرُ عَهْدِهِ بِالْبَيْتِ

তোমাদের কেউ যেন তার সর্বশেষ বাইতুল্লাহর তাওয়াফ না করে মক্কা থেকে না চলে যায়। (সহিহ মুসলিম: ১৩২৭)

হজের সব কার্যক্রম শেষ হওয়ার পর যে কোনো তাওয়াফই বিদায়ী তাওয়াফ গণ্য হয়। কেউ যদি হজ সম্পন্ন করে যে কোনো তাওয়াফ করে মক্কায় অবস্থান করে তাহলে তার জন্য মক্কা থেকে চলে আসার সময় আবার তাওয়াফ করা ওয়াজিব নয় । যেহেতু তার ওয়াজিব তাওয়াফ ইতিপূর্বেই আদায় হয়ে গেছে। তবে তার জন্যও একবার তাওয়াফ করে বিদায় নেওয়া মুস্তাহাব।

বিদায়ী তাওয়াফ অন্য তাওয়াফের মতই। তবে এ তাওয়াফ সাধারণ পোশাক পরেই করা হয়। হাজরে আসওয়াদ থেকে তাওয়াফ শুরু করতে হয়। এর সাতটি চক্করে কোন রমল নেই, ইজতিবাও নেই। তাওয়াফ শেষ করার পর দুরাকাত তাওয়াফের নামাজ আদায় করতে হবে। এ নামাজ মাকামে ইবরাহিমের সামনে সম্ভব না হলে হারামের যেকোনো জায়গায় আদায় করা যাবে। বিদায়ী তাওয়াফের পর কোন সাঈ নেই।
কেউ যদি হজের কার্যক্রম শেষ হওয়ার পর বিদায়ী তাওয়াফ বা কোনো নফল তাওয়াফ না করে দেশে ফিরে যায়, তাহলে যখন সুযোগ হয় নিজে উমরার উদ্দেশ্যে গিয়ে উমরার কাজ শেষ করে ছুটে যাওয়া তাওয়াফটি আদায় করে নেওয়া যাবে। বিলম্বে তাওয়াফ করার কারণে কোনো দম, সদকা বা জরিমানা ওয়াজিব হবে না। আর যদি এভাবে সেখানে গিয়ে তাওয়াফ করা সম্ভব না হয় তাহলে কারো মাধ্যমে হারাম এলাকার মধ্যে একটি ছাগল/দুম্বা জরিমানা দম হিসেবে কোরবানি করতে হবে।