• বৃহস্পতিবার ২৫ এপ্রিল ২০২৪ ||

  • বৈশাখ ১১ ১৪৩১

  • || ১৫ শাওয়াল ১৪৪৫

পিরোজপুর সংবাদ

পটুয়াখালী পৌরসভা নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রচারণা শুরু

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪  

পটুয়াখালী পৌরসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে জেলা নির্বাচন অফিসে জেলা সিনিয়র নির্বাচন অফিসার ও রিটানিং অফিসার খান আবি শাহানুর খান ৫ জন মেয়র, ৪১ জন কাউন্সিলর এবং ১৫ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থীর চাহিদার ভিত্তিতে প্রতীক বরাদ্দ করেন।

 

আসন্ন পটুয়াখালী পৌরসভার আনুষ্ঠানিক প্রচার অভিযান। শুক্রবার জুমার দিন থাকায় নামাজ শেষে শহরের অলি-গলিতে থেকে সব এলাকায় মাইকের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক প্রচার শুরু হয়ে গেছে মেয়র থেকে সাধারণ আসন এবং সংরক্ষিত মহিলা আসনের কাউন্সিলর প্রার্থীদের।

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পরে কোন প্রার্থীদের পক্ষে ভোট দেবার জন্য মাইকের শব্দ নতুন মাত্রা যোগ করেছে পৌরবাসীকে। যদিও নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা হওয়ার পর থেকে সব প্রার্থীরা ভোটারদের দ্বারে দ্বারে যাচ্ছেন দিচ্ছেন নানা ধরনের প্রতুশ্রতি। বিগত নির্বাচনের জয়ী প্রার্থীরা বলছেন নানা সীমাবদ্ধতার কারনে বিগত প্রতিশ্রতির সব কাজ না করতে পারার কারন সহ আগামী দিনের প্রতিশ্রুতি ।নতুন সহ বিগত দিনের বিজীত প্রার্থীরা তুলে ধরছেন বর্তমান জনপ্রতিনিধীদের বিভিন্ন ব্যার্থতা সহ তারা নির্বাচীত হলে তাদের নতুন প্রতিশ্রতি। বর্তমান মেয়র মহিউদ্দিন আহম্মেদ নির্বাচনী প্রতীক পেয়ে মির্জাগঞ্জ হযরত ইয়ার উদ্দিন খলিফা সাহেবের মাজার মসজিদে জুমার নামাজ শেষে কবর জিয়ারত করে তার আনুষ্ঠানিক প্রচার অভিযান শুরু করেন।

শুক্রবার  (২৩ ফেব্রুয়ারি) জেলা নির্বাচন অফিস কক্ষে জেলা সিনিয়র নির্বাচন অফিসার ও রিটানিং অফিসার খান আবি শাহানুর খান এর উপস্থিত হয়ে প্রতীক বরাদ্দ দেন মেয়র প্রার্থী মোঃ শফিকুল ইসলাম কে মোবাইল ফোন প্রতীক, মহিউদ্দিন আহম্মেদ কে জগ প্রতীক, আবুল কালাম আজাদ কে রেল ইঞ্জিন, এনায়েত হোসেন কে নারিকেল গাছ এবং নাসির উদ্দীন খান কে কম্পিউটার প্রতীক বরাদ্দ করা হয়। আগামী ৯ মার্চ ইভিএম এর মাধ্যমে পটুয়াখালী পৌরসভার ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে প্রতীক বরাদ্দের পর পরই প্রার্থীরা আনুষ্ঠানিক প্রচার প্রচারণা শুরু করেছেন।

জেলা নির্বাচন অফিসে জেলা সিনিয়র নির্বাচন অফিসার ও রিটানিং অফিসার খান আবি শাহানুর খান বলেন, সকল প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থীকে নির্বাচনী আচরনবিধি মেনে প্রচার প্রচারণা চালাতে বলা হয়েছে। কোন প্রার্থী আচরনবিধি অমান্য করে প্রচারণা চালালে কমিশনের আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।