• রোববার ২৩ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৮ ১৪৩১

  • || ১৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

পিরোজপুর সংবাদ

গরমে বাড়তে পারে কিডনির সমস্যা, কীভাবে সতর্ক থাকবেন?

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ১৬ মে ২০২৪  

হঠাৎ করেই কিডনির সমস্যা হতে পারে। বিশেষ করে অতিরিক্ত গরমে পানিশূন্যতার কারণে হঠাৎই বিকল হতে পারে কিডনি। মূলত তাপমাত্রা ও আবহাওয়ার কারণেই এমনটি ঘটে। চলুন জেনে নেওয়া যাক গরমে কিডনির কী কী সমস্যা হতে পারে, এর থেকে মুক্তির উপায়ই বা কী? কিডনি সাধারণত খনিজ পদার্থ ফিল্টার করে না। ফলে সেগুলো রক্তে থেকে যায়। তবে কিডনির ক্ষতি হলে সেগুলোও ফিল্টার হয়ে বাইরে বেরিয়ে আসে।

গ্লোমেরুলি নষ্ট হয়ে যায়

নানা কারণে কিডনির গ্লোমেরুলি নষ্ট হয়ে যায়। এর মধ্যে অন্যতম কারণ হলো গরম। গরমে উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা দেখা দিতে পারে। যার ফলে সূক্ষ্ম রক্তজালিকা ছিঁড়ে যায়। এর ফলে প্রোটিনও মূত্র দিয়ে বেরিয়ে যেতে পারে।

উৎসেচক

শরীরের গুরুত্বপূর্ণ উৎসেচকও রক্তে মিশে থাকে। এই উৎসেচকগুলো নানা কাজে সাহায্য করে শরীরকে। এই বিলিরুবিন ও বিলিভারডিনের মতো এই উৎসেচকগুলো মূত্র দিয়ে বাইরে বেরিয়ে আসে।

ডিহাইড্রেশন

কিডনির সমস্যা হওয়ার একটি বড় কারণ ডিাহাইড্রেশন। এতে রক্তে পানির পরিমাণ কমে যায়। কিডনি তখন ঠিকভাবে কাজ করতে পারে না। কিছু ক্ষেত্রে কিডনি কাজ করা বন্ধও করে দেয়।

তাপমাত্রা

শরীরের ভেতরের তাপমাত্রা এমনতেই বাইরের থেকে বেশি। তার মধ্যে বাইরের তাপমাত্রা ৪০ হলে ভেতরের তাপমাত্রা আরও বাড়বে। বেশি তাপমাত্রায় শরীরের অঙ্গ বিকল হয়ে যায়। কিডনির ক্ষেত্রেও তেমনটাই হয়ে থাকে।

কী করলে সুস্থ থাকবে কিডনি?

>> পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করতে হবে। আসলে গ্লোমেরুলি আমরা দেখতে পাই না। কারণ এগুলো খুবই সূক্ষ্ম। তাই কখন এগুলো খারাপ হচ্ছে তা বোঝা অসম্ভব। কারণ এক্ষেত্রে কোনো লক্ষণও দেখা দেয় না। তাই শরীরে পানির অভাব ঘটতে দেওয়া যাবে না।

>> অপেক্ষাকৃত ঠান্ডা স্থানে বেশি থাকতে হবে। এতে শরীর কম গরম হবে। ফলে ভেতরের অঙ্গগুলোর তাপমাত্রা বেড়ে যাবে না।

>> পানি শরীরের তাপমাত্রা কমায়। একই সঙ্গে ডাবের পানি, আখের রস, দইয়ের ঘোল, লাচ্ছিও তাপমাত্রা কমাতে সাহায্য করে। তাই এগুলো পান করতে পারেন।