• শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ১০ ১৪৩০

  • || ১২ শা'বান ১৪৪৫

পিরোজপুর সংবাদ
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্টের অভিনন্দন প্রতিবেশীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক রেখেই সামুদ্রিক সম্পদ আহরণের আহ্বান সমুদ্রসীমার সম্পদ আহরণ করে কাজে লাগানোর তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর ২১ বছর সমুদ্রসীমার অধিকার নিয়ে কেউ কথা বলেনি: শেখ হাসিনা হঠাৎ টাকার মালিক হওয়ারা মনে করে ইংরেজিতে কথা বললেই স্মার্টনেস ভাষা আন্দোলন দমাতে বঙ্গবন্ধুকে কারান্তরীণ রাখা হয় : সজীব ওয়াজেদ ভাষা আন্দোলনের পথ ধরেই বাংলাদেশের মানুষ স্বাধিকার পেয়েছে অশিক্ষার অন্ধকারে কেউ থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী একুশ মাথা নত না করতে শেখায়: প্রধানমন্ত্রী একুশে পদক তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী

পিরোজপুর-৩ আসনে মনোনয়নপত্র বাছাইয়ে টিকে গেলেন ৯ প্রার্থী

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ৪ ডিসেম্বর ২০২৩  

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি : দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পিরোজপুর-৩ (মঠবাড়িয়া) আসনে ১৪ প্রার্থীর মধ্যে যাচাই-বাছাইয়ে টিকে গেলেন ৯ প্রার্থী এবং বাদ পরেছেন ৫ প্রার্থী। যারা বাদ পরলেন তারা হলেন- খেলাফত আন্দোলন মনোনীত প্রার্থী আব্দুল লতীফ সিরাজী, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পাটি মনোনীত প্রার্থী প্রশান্ত কুমার হাওলাদার খোকন,স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু তারেক মৃধা, সুধীর রঞ্জন ও মোঃ শহীদুল ইসলাম। ৩ ডিসেম্বর রোববার বিকেল ৪ টায় পিরোজপুর জেলা রিটানিং কর্মকর্তার কার্যালয় প্রার্থীদের এ যাচাই-বাছাই কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়।

যাদের নির্বাচনে অংশগ্রহণে কোন বাঁধা নেই, তারা হলেন- বর্তমান সাংসদ ডাঃ মোঃ রুস্তুম আলী ফরাজী (স্বতন্ত্র), আ.লীগ মনোনীত প্রার্থী মোঃ আশরাফুর রহমান, জাতীয় পার্টি (এরশাদ) মনোনীত মাশরেকুল আজম রবি, কল্যাণ পার্টি মনোনীত সাংবাদিক শহীদুল ইসলাম স্বপন, ন্যাশনাল পিপল্স পার্টি মনোনীত আমির খান, মুক্তি জোট মনোনীত জাসেম আলম, স্বতন্ত্র প্রার্থী শামীম শাহনেওয়াজ, কংগ্রেস পার্টি মনোনীত হোসাইন মোশারফ সাকু, জাকের পর্টি মনোনীত চন্দ্র শেখর লিটু।

৪ ডিসেম্বর সোমবার সকালে খেলাফত আন্দোলন মনোনীত প্রার্থী আব্দুল লতীফ সিরাজী বলেন, তিনি প্রার্থীর বৈধতা নিয়ে আপিল করবেন। এবং আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচণে অংশ গ্রহণ করবেন।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, যাচাই কর্যাক্রমে যারা প্রাথমিক ভাবে ছিটকে পরবেন তারা ৬ থেকে ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে আপীল করতে পারবেন। প্রার্থীতা প্রত্যাহরের দিন ১৭ ডিসেম্বর এবং ১৮ ডিসেম্বর দলীয় ব্যাতিথ প্রতীক বরাদ্ধ।

দেখা গেছে, আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রচারণার নির্দেশ না পেলেও প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা বিভিন্ন কৌশলে ব্যপক প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। যার-যার অবস্থান থেকে প্রার্থী ও সমর্থক বিজয়ী হবার আশা প্রকাশ করছেন।

আ.লীগ মনোনীত প্রার্থী মোঃ আশরাফুর রহমান বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনা দলীয় একজন ত্যাগী কর্মি হিসেবে আমাকে মনোনয়ন দিয়েছেন। আমি দীর্ঘ বছর বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে মানুষের জন্য কাজ করেছি। মঠবাড়িয়ার সর্বাস্থরের মানুষ আমাকে ভোটে বিজয়ী করবেন ইনশাআল্লাহ।

জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী মাশরেকুল আজম রবি বলেন এদেশের মানুষ পল্লীবন্ধু এরশাদকে ভালবাসেন। আধুনিক মঠবাড়িয়া গড়তে মঠবাড়িয়ার মানুষ এরশাদের লাঙ্গল প্রতীকে ভোট দিয়ে আমাকে বিজয়ী করবেন।

সাংসদ ডাঃ মোঃ রুস্তুম আলী ফরাজী বলেন, আমি অবহেলিত মঠবাড়িয়াকে প্রায় আধুনিক হিসেবে গড়ে তুলেছি। গত ৫ বছরে ৪ হাজার কোট টাকা বেশী উন্নয়ন মূলক কাজ করেছি। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে সাধারণ মানুষ কখোনই ভুল করবে না। তারা আমাকে ভোট দিয়ে পুণঃরায় জয়যুক্ত করবেন।