• শনিবার ১৮ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৪ ১৪৩১

  • || ০৯ জ্বিলকদ ১৪৪৫

পিরোজপুর সংবাদ
ব্রেকিং:
যত ষড়যন্ত্র হোক, আ.লীগ সংবিধানের বাইরে যাবে না: ওবায়দুল কাদের শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আগামীকাল ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে বিচারকদের প্রতি আহ্বান রাষ্ট্রপতির আহতদের চিকিৎসায় আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর ভূমিকা চান প্রধানমন্ত্রী টেকসই উন্নয়নের জন্য কার্যকর জনসংখ্যা ব্যবস্থাপনা চান প্রধানমন্ত্রী বিএনপি ক্ষমতায় এসে সব কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ করে দেয় চমক রেখে বিশ্বকাপের দল ঘোষণা করল বাংলাদেশ শেখ হাসিনার তিন গুরুত্বপূর্ণ সফর: প্রস্তুতি নিচ্ছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় হজযাত্রীদের ভিসা অনুমোদনের সময় বাড়ানোর আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

পুরোনো স্মার্টফোন ৬ কাজে লাগাতে পারেন

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ২৩ এপ্রিল ২০২৪  

কিছুদিন পর পর অনেকেই ফোন পরিবর্তন করতে পছন্দ করেন। অনেকে যেমন জামা-কাপড় কেনার শখ থাকে তেমনি অনেকেই নতুন নতুন মডেলের ফোন কেনেন। তবে আপনার যে পুরোনো ফোনগুলো রয়ে গেলো সেগুলো কি করেন? নিশ্চয়ই বিক্রি করেন। কিন্তু ব্যবহৃত ফোন বিক্রি করা খুবই বিপজ্জনক।

ফোন থেকে আপনি যতই আপনার সব তথ্য, ছবি ডিলিট করুন না কেন তা কোথাও না কোথাও থেকে যায়। খারাপ মানুষের হাতে পড়লে বিপদেও পড়তে পারেন। তবে অনেকেই শখের এবং খুব প্রিয় ফোন কিংবা অনেক পুরোনো হয়ে গেছে এমন ফোন বিক্রি না করে রেখে দেন।

আপনার ঘরে ফেলে রাখা ফোনগুলো কিন্তু অনেক কাজেই লাগাতে পারেন। চলুন জেনে নেওয়া যাক এমন কয়েকটি উপায়-

গাড়ির ক্যামেরা

বাড়িতে যদি পুরোনো স্মার্টফোন থাকে তাহলে সেটি গাড়ির ড্যাশ ক্যাম হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। ওই ফোনের ক্যামেরা যদি ঠিকঠাক অবস্থায় থাকে তাহলে সেটি গাড়ির সামনে রেখে দিন। প্রথমে ওই ফোনে প্লে স্টোর থেকে ড্যাশ ক্যামেরা অ্যাপ ডাউনলোড করে নিন। তারপর ফোন হোল্ডারের সাহায্যে সেটি গাড়িতে ইনস্টল করুন। কোনো দুর্ঘটনা বা আপনার সঙ্গে অন্যায় কিছু হলে তা সেখানে রেকর্ড করা যাবে।

স্টোরেজ ডিভাইস

আপনার যে প্রাইমারি ডিভাইস রয়েছে তাতে যদি স্টোরেজ ফুল থাকে তাহলে বেশ কিছু ছবি, ভিডিও এবং ফাইল পুরোনো ফোনে ট্রান্সফার করে রাখতে পারেন। অর্থাৎ স্টোরেজ ডিভাইস হিসেবে কাজ করবে ওই স্মার্টফোন।

রি-সাইকেল

পুরোনো ফোন যদি একদমই চালানোর অবস্থায় না থাকে তাহলে সেটি ডাস্টবিনে না ফেলে রি-সাইকেল করতে পারেন। অনলাইনের জন্য একাধিক ওয়েবসাইট রয়েছে। পুরোনো স্মার্টফোনগুলো সংগ্রহ করার জন্য ডোর টু ডোর পরিষেবাও দিয়ে থাকে সংস্থাগুলো। ওই ফোন থেকে বেশ কিছু যন্ত্র বের করে নেওয়া হয়। এর ফলে ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস অপচয় হবে না।

এক্সচেঞ্জ

ফোনের ক্যামেরা, ব্যাটারি ও ডিসপ্লে যদি ভালো থাকে তাহলে সেটি ফেলে না রেখে এক্সচেঞ্জ করে নিতে পারেন, এক্ষেত্রে দুটি পদ্ধতি রয়েছে। প্রথম ফ্লিপকার্ট-অ্যামাজনে নতুন ফোন কেনার সময় এক্সচেঞ্জ করে নিতে পারেন। যা আপনার নতুন ফোনের দাম কিছুটা কমিয়ে দেবে। দ্বিতীয় হলো সরাসরি কোনো অনলাইন ওয়েবসাইট বা দোকানে গিয়ে পুরোনো ফোন বিক্রি করে টাকা নিয়ে নিতে পারেন।

অনলাইন সার্ভে

বর্তমানে অনলাইন সার্ভে কাজটি খুব জনপ্রিয়। প্রচুর মানুষ এই কাজের সঙ্গে যুক্ত। আপনি এই ধরনের সার্ভে থেকে আয় করতে পারেন। এজন্য কিছু সার্ভে ওয়েবসাইট আছে, সেখানে আপনি সার্ভে সম্পূর্ণ করার জন্য প্রতি মাসে হাজার হাজার টাকা পাবেন। তবে যে কোনো ওয়েবসাইটে এই কাজ করবে না। সব সময় কোনো ওয়েবসাইট ব্যবহার করার আগে ভালো করে যাচাই করে নেবেন।

নেভিগেশন ডিভাইস
আলাদা করে নেভিগেশন ডিভাইস কেন কিনবেন। ফোনের ব্যাটারি যদি ঠিক থাকে তাহলে ওই ফোনে গুগল ম্যাপ চালিয়ে বাইক বা গাড়িতে লাগিয়ে নিন। নেভিগেশন করার ক্ষেত্রে কাজে আসবে।