• মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল ২০২৪ ||

  • বৈশাখ ৯ ১৪৩১

  • || ১৩ শাওয়াল ১৪৪৫

পিরোজপুর সংবাদ
ব্রেকিং:
দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় বাংলাদেশ সর্বদা প্রস্তুত : প্রধানমন্ত্রী দেশীয় খেলাকে সমান সুযোগ দিন: প্রধানমন্ত্রী খেলাধুলার মধ্য দিয়ে আমরা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে হবে: রাষ্ট্রপতি শারীরিক ও মানসিক বিকাশে খেলাধুলা গুরুত্বপূর্ণ: প্রধানমন্ত্রী বিএনপির বিরুদ্ধে কোনো রাজনৈতিক মামলা নেই: প্রধানমন্ত্রী স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে পশুপালন ও মাংস প্রক্রিয়াকরণের তাগিদ জাতির পিতা বেঁচে থাকলে বহু আগেই বাংলাদেশ আরও উন্নত হতো মধ্যপ্রাচ্যের অস্থিরতার প্রতি নজর রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর প্রধানমন্ত্রী আজ প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ উদ্বোধন করবেন

২০ লাখ মাইল গতিতে ধেয়ে আসছে সৌর ঝড়, পৃথিবীর জন্য বড় বিপদ

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ১ এপ্রিল ২০২৩  

এক বিশাল কালো গর্তের দেখা মিললো সূর্যের গায়ে। সূর্যের দক্ষিণ মেরুর দিকে তৈরি হয়েছে এই ভয়ংকর কালো গর্ত। সম্প্রতি মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা এই গর্তটির সন্ধান পেয়েছে। এই বিশাল গর্তের নাম দেওয়া হয়েছে ‘করোনল হোল’।
বিজ্ঞানীদের কথায়, সূর্যের একটি বড় অংশ বেমালুম অদৃশ্য হয়ে গেছে। তার ফলেই দেখা দিয়েছে এত বড় গর্ত। আয়তনে ঠিক কতটা বড় সূর্যের দক্ষিণ মেরুর এই কালো গর্ত? পৃথিবীর তুলনায় প্রায় ২০ গুণ বড় এই গর্ত।‌ তবে ভয়ের আসল কারণ অন্য জায়গায়।

বিশেষজ্ঞদের মতে, এই বিশাল গর্তের কারণে তীব্র সৌরঝড়ের সৃষ্টি হতে চলেছে। এরই মধ্যে এই তীব্র সৌর ঝড়ের আশঙ্কা দেখে আমেরিকার ফেডেরাল এজেন্সি (এনওএএ) একটি সতর্কতা জারি করেছে। এই সৌর ঝড়ের গতিবিধির উপর এরই মধ্যে কড়া নজরদারি রাখছেন বিজ্ঞানীরা।

অস্ট্রেলিয়ার একটি সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, এই গর্তের কারণে তৈরি হওয়া সৌর ঝড় প্রতি ঘণ্টায় ২.৯ মিলিয়ন বেগে ধেয়ে আসছে পৃথিবীর দিকে। শুক্রবার পৃথিবীতে আছড়ে পড়বে সৌর ঝড়, এমনটাই আশঙ্কা করছেন বিজ্ঞানীরা। শুধু তাই নয়, বিজ্ঞানীদের আশঙ্কা, একনাগাড়ে সূর্য থেকে পৃথিবীতে তড়িতাহত কণা আসতে থাকলে এই গ্রহের চৌম্বকীয় ক্ষেত্র, মোবাইল ফোন, স্যাটেলাইট ও জিপিএস ব্যবস্থা অকেজো হয়ে পড়বে।

গত ২৩ মার্চ নাসার সোলার ডায়নামিকস অবজারভেটরি এই কালো গর্ত আবিষ্কার করে। সূর্যের দক্ষিণ মেরুতে তৈরি হওয়া এই গর্ত যেকোনও সময় সূর্যের গায়ে দেখা দিতে পারে বলেই জানাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা। সাধারণত সূর্যের যেকোনও অংশেই এই গর্ত দেখা দেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।  তবে দুই মেরুতে তৈরি হলে তা অনেক বেশি স্থায়ী হয়। দক্ষিণ মেরুতে তৈরি এই গর্ত তাই বড় চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।