• বৃহস্পতিবার ২৫ এপ্রিল ২০২৪ ||

  • বৈশাখ ১১ ১৪৩১

  • || ১৫ শাওয়াল ১৪৪৫

পিরোজপুর সংবাদ

আম্পায়ারের ভুলেই ভারতের কাছে হারল আফগানিস্তান?

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ১৮ জানুয়ারি ২০২৪  

ক্রিকেট ম্যাচে যত কিছু হওয়া সম্ভব, সবকিছুই হয়েছে এই ম্যাচে। ভারত-আফগানিস্তান টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ ম্যাচ গড়িয়েছে সুপার ওভারে। তাও একটি নয়, দুটি সুপার ওভার লেগেছে ফলাফল আসতে! দ্বিতীয় সুপারে আফগানদের ১০ রানে হারিয়ে শ্বাসরুদ্ধকর এক ম্যাচে জয় পেয়েছে ভারত। তবে সবকিছু ছাপিয়ে ম্যাচের পর উঠে এসেছে রোহিত শর্মার তিনবার ব্যাটিং করার ইস্যুটি। প্রথম সুপার ওভারে রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে স্বেচ্ছায় মাঠ ছাড়া রোহিত দ্বিতীয় সুপার ওভারেও ব্যাটিংয়ে নেমেছেন। তবে আইসিসির নিয়ম বলছে, এমনটা করা যাবে না। তাহলে কি আম্পায়ারের ভুলেই ম্যাচ হেরেছে আফগানরা?

বেঙ্গালুরুতে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে ২২ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে বিপাকে পড়ে ভারত। এরপর রোহিতের দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরিতে ২১২ রানের বড় সংগ্রহ দাড় করায় ভারত। ১১ চার ও ৮ ছক্কায় ৬৯ বলে ১২১ রানে অপরাজিত থাকেন ভারতীয় অধিনায়ক। ২ চার ও ৬ ছক্কায় ৩৯ বলে ৬৯ রান করে তার সাথে অপরাজিত ছিলেন রিংকু সিং।

রান তাড়া করতে নেমে আফগানরাও কম যায়নি। গুরবাজ, জাদরান ও গুলবাদিনের তিন ফিফটিতে শেষ বলে ভারতের স্কোর স্পর্শ করা ম্যাচ টাই করে আফগানরা। ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে। প্রথম সুপার ওভারে ব্যাটিং নেমে ১৬ রান তোলে আফগানরা। জবাবে রোহিতের দুই ছক্কায় আফগানদের স্কোরের খুব কাছে চলে যায় ভারত। শেষ বলের আগে হঠাৎ মাঠ ছাড়েন রোহিত, বিতর্কের শুরু এখানেই। আফগান ক্রিকেটাররা আম্পায়ারকে এই ব্যাপারে প্রশ্ন করলে তারা বলেন, স্বেচ্ছায় অবসর নেওয়ার নিয়ম আছে। ধারণা করা হয়েছিল, দ্রুত রান নেওয়ার জন্যই নতুন ব্যাটারকে নামাচ্ছেন রোহিত। শেষ বলে জয়সওয়াল দৌড়ে রান নিলে আবারও ম্যাচ টাই হয়।

কিন্তু স্বেচ্ছায় অবসর নিলেও দ্বিতীয় সুপার ওভারে ব্যাটিংয়ে নামেন রোহিত। একটি চার ও ছক্কা মেরে দলকে ভালো স্কোর এনে দেন তিনি। শেষ পর্যন্ত জয়ের জন্য ১২ রান দরকার হলেও আফগানরা দ্বিতীয় ওভারে করতে পেরেছে ২ রান। ১০ রানের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে ভারত।

বিতর্কের শুরু ভারতের জয়ের পর থেকেই। আইসিসির ২৪.৪.২ ধারা অনুযায়ী, যদি কোনও ব্যাটার ইনজুরি কিংবা অসুস্থতার কারণে রিটায়ার্ড হার্ট হন, তাহলে পরবর্তীতে যেকোনো সময়ে মাঠে ফিরতে পারবেন। কিন্তু এসব কারণ ছাড়া স্বেচ্ছায় মাঠ ছাড়লে তিনি ‘রিটায়ার্ড আউট’ হিসাবে গণ্য হবেন। পরবর্তীতে মাঠে নামতে গেলে প্রতিপক্ষের অধিনায়কের অনুমতি নিয়ে নামতে হবে। কিন্তু রোহিত আসলে রিটায়ার্ড হার্ট না আউট ছিলেন সেটা স্পষ্ট নয়। দ্বিতীয় সুপার ওভারে মাঠে নামার আগে আফগান অধিনায়ক কিংবা আম্পায়ারদের সাথে কোনও আলোচনা করেননি তিনি। এই কারণেই প্রশ্ন উঠেছে, আম্পায়ারদের ভুলের কারণেই কি রোহিত তৃতীয়বার ব্যাটিংয়ে নেমেছেন? আর দ্বিতীয় সুপার ওভারে তার দারুণ ব্যাটিংয়ের জন্য হেরেছে আফগানরা। তাহলে কি আম্পায়ারদের ভুলেই জমজমাট এই ম্যাচ হারতে হলও আফগানিস্তানকে?