• শুক্রবার   ২৭ জানুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ১৩ ১৪২৯

  • || ০৪ রজব ১৪৪৪

পিরোজপুর সংবাদ

অবৈধভাবে কর্মরত বিদেশিদের বিষয়ে নজরদারি বাড়ানো হচ্ছে

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ১ ডিসেম্বর ২০২২  

অর্থ পাচার ঠেকাতে সব পর্যায়ে যাচাই-বাছাই আরও বাড়াতে হবে। ডিজিটাল হুন্ডি প্রতিরোধে নিতে হবে কঠোর পদক্ষেপ। এছাড়া অনলাইন জুয়া, ক্রিপ্টো কারেন্সির লেনদেন ঠেকাতে শিগগিরই নতুন একটি নীতিমালা প্রণয়ন করা হবে। গতকাল বুধবার মানি লন্ডারিং ও সন্ত্রাসে অর্থায়ন প্রতিরোধ ও দমন জোরদারবিষয়ক কেন্দ্রীয় টাস্কফোর্সের ১৮তম সভায় এসব কথা উঠে আসে। সভায় বলা হয়, দেশে অবৈধভাবে কর্মরত বিদেশিদের বিষয়ে নজরদারি বাড়ানোর পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের (বিএফআইইউ) প্রধান মো. মাসুদ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে পুলিশের বিভিন্ন ইউনিট, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন, বীমা খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইডিআরএ, সমবায় অধিদপ্তর ও টাস্কফোর্সের সদস্য ৮টি ব্যাংকসহ বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধিরা অংশ নেন।

বৈঠকে উত্থাপিত তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিভিন্ন দেশের এক লাখ ২১ হাজারের মতো বিদেশি নাগরিক বাংলাদেশে অবস্থান করছেন। তাঁদের মধ্যে চীনা নাগরিক অনেকে অন-অ্যারাইভাল ও বিজনেস ভিসা নিয়ে এসে অর্থনৈতিক কাজে যুক্ত হচ্ছেন। নাইজেরিয়া ও সোমালিয়া থেকে শিক্ষার্থী ভিসায় এখানে এসে শিক্ষা কার্যক্রম অসম্পূর্ণ রেখেই তৈরি পোশাকশিল্পের ব্যবসা, বিভিন্ন ক্লাবে ফুটবল খেলা ও অপরাধমূলক কাজে যুক্ত হচ্ছেন। অনেক ক্ষেত্রে বাংলাদেশিদের সঙ্গে বিয়েসহ নানা প্রতারণা, ফৌজদারি অপরাধে জড়িয়ে পড়ছেন তাঁরা। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে যথাযথভাবে রাজস্ব না পাওয়ায় সরকার প্রতিবছর আনুমানিক সাড়ে চার হাজার কোটি টাকার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। আবার অবৈধ উপায়ে দেশের বাইরে বৈদেশিক মুদ্রা নিয়ে যাচ্ছে। অর্থনীতির জন্য যা হুমকিস্বরূপ। এ বিষয়ে একটি পূর্ণাঙ্গ ডাটাবেইজ করে বিএফআইইউকে দেওয়ার জন্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে বলা হয়েছে।

বৈঠকে বলা হয়, ফ্রিল্যান্সারদের আয় বৈধ পথে দেশে আনতে নানা প্রতিবন্ধকতা রয়েছে। তাঁরা যেন সহজে আয় আনতে পারেন সে ব্যবস্থা নিতে হবে। একই সঙ্গে প্রবাসীদের হুন্ডিতে নিরুৎসাহিত করতে হবে। এক্ষেত্রে হুন্ডি কারবারিদের ওপর কঠোর নজরদারির পাশাপাশি সুযোগ-সুবিধা বাড়াতে হবে। এ লক্ষ্যে সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন এমএফএস এজেন্ট ও ডিস্ট্রিবিউটরের তালিকা সিআইডিতে পাঠানো, বেশ কিছু সুবিধাভোগীর হিসাব ফ্রিজসহ বিভিন্ন ব্যবস্থা তুলে ধরা হয়। পাশাপাশি কার্ব মার্কেটে ডলারের দর নিয়ন্ত্রণে ১৪টি মানিচেঞ্জার প্রতিষ্ঠানের তালিকা সিআইডিতে পাঠানোর বিষয়টি তুলে ধরা হয়। এসব প্রতিরোধে আগামীতে আরও কঠোর হবে বিএফআইইউ।

বৈঠকে বলা হয়, সাম্প্রতিক সময়ে ব্যাংক খাতের তারল্য সংকট নিয়ে নানা গুজব ছড়ানো হচ্ছে। গুজব প্রতিরোধে কাজ করতে হবে। পাশাপাশি ব্যাংক খাতের প্রকৃত অবস্থা সবার সামনে তুলে ধরতে হবে।