• শনিবার   ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৮ ১৪২৯

  • || ০৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

পিরোজপুর সংবাদ
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে বঙ্গবন্ধু ট্রাস্টের সভা বাংলাদেশ সবসময় ভারতের কাছ থেকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পায় কর ব্যবস্থাপনা তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ১০ টাকায় টিকিট কেটে চোখ পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী আইসিওয়াইএফ থেকে পাওয়া সম্মাননা প্রধানমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর শিক্ষা ব্যবস্থা যাতে পিছিয়ে না যায় সে ব্যবস্থা নিচ্ছি প্রধানমন্ত্রীর কাছে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল হস্তান্তর প্লিজ যুদ্ধ থামান, সংঘাত থামাতে সংলাপ করুন: শেখ হাসিনা হানিফের সংগ্রামী জীবন নতুন প্রজন্মের রাজনৈতিক কর্মীদের দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত করবে মোহাম্মদ হানিফ ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন পরীক্ষিত নেতা

ভারতীয় রুপিতে বাণিজ্যে আগ্রহ দেখাচ্ছে যেসব দেশ

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২  

পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা আতঙ্ক এবং মার্কির ডলারের অস্থিরতার কারণে ভারতীয় রুপিতে মূল্য পরিশোধে আগ্রহ প্রকাশ করেছে রাশিয়া, ইরান, সংযুক্ত আরব আমিরাত, সৌদি আরব, জাপানসহ পশ্চিমা দেশের বাইরের কিছু দেশ। দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য এগিয়ে নিতে ভারতও নীতি সংশোধনের মাধ্যমে রুপিতে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের দ্বার খুলে দিয়েছে।

ভারতের শিল্পগ্রুপ ‘টি অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্ডিয়ার’ মহাসচিব প্রবীর ভট্টাচার্য রুশ গণমাধ্যম স্পুটনিককে বলেন, পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞায় পড়া রাশিয়া ও ইরানের মতো দেশের আমদানিকারকরা ভারতীয় পণ্যের জন্য রুপিতে মূল্য পরিশোধ করতে চাইছেন। প্রকৃতপক্ষে অর্থনৈতিক অবরোধ এড়াতে তারা এ পথে বাণিজ্য এগিয়ে নিতে চান।

প্রবীর ভট্টাচার্য আরও বলেন, প্রধান চা আমদানিকারক দেশ- যেমন সংযুক্ত আরব আমিরাত, সৌদি আরব, জাপান, শ্রীলঙ্কা এবং চীনও রুপিতে মূল্য পরিশোধের সুযোগ কাজে লাগাতে চাইছে। কারণ, মার্কিন ডলারের ক্ষেত্রে এর জন্য বিশ্বব্যাপী এক প্রকার শুল্ক দিতে হয়।

ভারত সরকারের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বিশ্বের এক নম্বর চা উৎপাদনকারী এবং চতুর্থ রফতানিকারক দেশ ভারত। ২০২১ সালের হিসাব অনুসারে, ভারতীয় চা-এর মোট রফতানির প্রায় ১৭.৩ শতাংশ রাশিয়ায়, ১৩.৪ শতাংশ ইরানে এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতে রফতানি হয়েছে প্রায় ৮.৮ শতাংশ। চলতি বছর আমদানির পরিমাণ আরও বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

অর্থনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মার্কিন ডলারের বিকল্প অনুসন্ধান এখন সময়ের প্রয়োজন হয়ে দাঁড়িয়েছে। ভারতীয় অর্থনৈতিক অ্যাডভোকেসি গ্রুপ স্বদেশী জাগরণ মঞ্চেরসহ আহ্বায়ক অশ্বনী মহাজনের মতে, বৈদেশিক বাণিজ্য এগিয়ে নিতে ভারতের এখন ডলারের বিকল্প খুঁজে বের করা প্রয়োজন হয়ে দাঁড়িয়েছে। আগামী মাস ও বছরগুলোতে রুপিতে বিদেশি লেনদেন প্রসারিত হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

ভারতের মার্কিন ডলার থেকে পিছু হটার পেছনে অশ্বনী মহাজন ইরান ও রাশিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞাকে দায়ী করেছেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ব্যবসা সম্প্রসারণে ভারতের আরও আগেই স্থানীয় মুদ্রায় বাণিজ্য উৎসাহিত করা উচিত ছিল।