• শুক্রবার   ১৯ আগস্ট ২০২২ ||

  • ভাদ্র ৪ ১৪২৯

  • || ২০ মুহররম ১৪৪৪

পিরোজপুর সংবাদ
ব্রেকিং:
প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন জাতিসংঘ মানবাধিকার প্রধান বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর আ. লীগের নেতারা কী করেছিলেন: প্রধানমন্ত্রী সুশীল বাবু মইনুল খুনিদের নিয়ে দল গঠন করে: প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু হত্যায় জড়িতরা আজ মানবাধিকারের কথা বলে: প্রধানমন্ত্রী ভারত পারলে আমরাও রাশিয়া থেকে তেল কিনতে পারবো: প্রধানমন্ত্রী চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডে হতাহতের ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর শোক ‘ষড়যন্ত্র প্রতিহত করে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচারের রায় কার্যকর করেছি’ খবরদার আন্দোলনকারীদের ডিস্টার্ব করবেন না: প্রধানমন্ত্রী জাতির পিতার মৃত্যু নেই প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে বঙ্গবন্ধু আমাদের রোল মডেল

মঠবাড়িয়ায় স্বামী হত্যার ঘটনায় পলাতক ঘাতক স্ত্রী গ্রেপ্তার

পিরোজপুর সংবাদ

প্রকাশিত: ৩১ জুলাই ২০২২  

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি :

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় চাঞ্চল্যকর আবু সালেহ (৫০) নামে এক দিনমজুর হত্যা মামলার প্রধান আসামী তার স্ত্রী কোকিলা বেগম (২৭) কে ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রেপ্তার করেছে মঠবাড়িয়া থানা পুলিশ। মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা মঠবাড়িয়া থানার এস.আই নূর আমিন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পাশ্ববর্তী ভান্ডারিয়া উপজেলার তেলিখালী এলাকার একটি বাড়ি থেকে রোববার সকালে গ্রেপ্তার করেন। তদন্তের স্বার্থে ওই বাড়িটির নাম উল্লেখ করেন নি। নিহত আবু সালেহ মঠবাড়িয়া সদর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ড উত্তর মিঠাখালী গ্রামের মৃত বারেক সুফির ছেলে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মঠবাড়িয়া সার্কেল) মোহাম্মদ ইব্রাহীম জানান, শনিবার শেষ রাতের কোন এক সময় স্বামী আবু সালেহর লাশ পাকের ঘরে ফেলে রেখে তার তৃতীয় স্ত্রী কোকিলা বেগম আত্মগোপন করেন। আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে আসামী কোকিলা বেগমের অবস্থান নির্ধারণ করে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাকে (কোকিলা বেগম) জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে এ হত্যাকান্ডের সাথে কে বা কাহারা জড়িত রয়েছে। পরবর্তিতে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মঠবাড়িয়া থনার ওসি মুহা. নূরুল ইসলাম বাদল বলেন, ৩০ জুলাই শনিবার সকালে উপজেলার উত্তর মিঠাখালী নিহত আবু সালেহর পাকের ঘর থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়। এঘটনায় নিহতের প্রথম সংসারের মেয়ে সালমা আক্তার লিপি বাদি হয়ে শনিবার দুপুরেই মঠবাড়িয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

নিহতের পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নিহত আবু সালেহ’র তিনটি বিয়ে রয়েছে। তৃতীয় স্ত্রী কোকিলা বেগমের সাথে প্রায়ই কলহ বেঁধে থাকতো। কিন্তু তার বাড়িটি আলাদা হওয়ায় পরিবারের অন্যরা কেহ সেখানে যেতেন না। শুক্রবার গভীর রাত একটি গরু বিক্রির টাকা নিয়ে দুজনের মধ্যে তুমুল ঝগড়া চলছিলো। শনিবার সকালে প্রতিবেশী এর নারী রান্না ঘরের মেঝেতে তার লাশ দেখতে পেয়ে চিৎকার করেন। পরে স্থানীয়রা থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করেন। ময়না তদন্ত শেষে শনিবার রাতে নিহতের লাশ পারবারিক কবরস্থনে দাফন করা হয়।